কলকাতা দেশ রাজনৈতিক

২১-এর লক্ষ্যে ২১-এ কি বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর? মঞ্চে দেখা যেতে পারে কি প্রশান্ত কিশোরকে?

নিজস্ব প্রতিনিধি— এবারের ২১ জুলাইয়ের সমাবেশ পড়ছে রবিবার। তাই উত্তর থেকে দক্ষিণ, একুশে জুলাইয়ের সমাবেশ উপলক্ষ্যে ইতিমধ্যেই কলকাতায় আসতে শুরু করে দিয়েছেন তৃণমূল সমর্থকরা। শুক্রবার রাত থেকেই হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশনে ট্রেন থেকে নামছেন হাজার হাজার ঘাসফুল সমর্থক। এদের কারও থাকার ব্যবস্থা হয়েছে গীতাঞ্জলী স্টেডিয়ামে। কেউ থাকবেন করুণাময়ীতে। তবে এবারের শহিদ দিবসে গতবারের তুলনায় বেশি ভিড় হবে? যদিও তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, গতবারের ভিড়কেও ছাপিয়ে যাবে এবারের একুশের সভা। তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় অবশ্য দাবি করেছেন, ”গত বারের রেকর্ড ছাপিয়ে যাবে এ বার। আগামী দিনের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ শুনতেই মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে আসবেন।”

আরও একটি বিষয় নিয়ে এই মুহূর্তে রাজ্য-রাজনীতিতে জল্পনা তুঙ্গে। এবারের একুশের মঞ্চে কি দেখা যাবে রাজনৈতিক রণকৌশলবিদ প্রশান্ত কিশোরকে? জল্পনার পারদ চড়ছে একুশের সভার আগে। সমাবেশের ২৪ ঘণ্টা আগেই মঞ্চ তৈরির কাজ ৯০ শতাংশ শেষ। প্রতিবারের মতো ধর্মতলার ভিক্টোরিয়া হাউসের সামনে ত্রিস্তরীয় মঞ্চ তৈরি হয়েছে। সেই মঞ্চেই থাকবেন শাসকদলের মন্ত্রী-বিধায়ক ও শহিদ পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু মূল মঞ্চে ওঠার সিঁড়ির পাশে একটি ছোট্ট ঘর তৈরি করা হয়েছে। সেই ঘর নিয়েই শুরু হয়েছে জল্পনা। এই ঘরেই কি থাকবেন প্রশান্ত কিশোর? ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে গুঞ্জন। যদিও এবিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন শীর্ষ নেতারা।

লোকসভা নির্বাচনে ধাক্কা খাওয়ার পর একুশের সভা হল তৃণমূলের বড় পরীক্ষা। সভায় ভিড়ের উপর দলের অনেক কিছুই নির্ভর করছে। নেতা-নেত্রীরা লোক আনার কোনও কসুর রাখছেন না, কিন্তু যেভাবে জেলায় জেলায় শাসকদলের সংগঠনে ভাঙন ধরিয়েছে বিজেপি তাতে আশঙ্কার মেঘ দেখছে নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে দলীয় কর্মী-সমর্থকদের চাঙ্গা করতে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একুশের মঞ্চ থেকে কী বার্তা দেন তা জানতে মুখিয়ে রাজনৈতিক মহল। এবারের স্লোগান, গণতন্ত্র ফিরিয়ে দাও, মেশিন নয় ব্যালট ফেরাও। অনেকেরই মত, পলিটিক্যাল স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরের নির্দেশমতোই লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির ধাক্কা থেকে দলীয় কর্মীদের বের করার দাওয়াই দেবেন মমতা। কারণ সামনেই বছরই রাজ্যে পুরভোট। অনেকেরই ধারণা, এবারের পুরভোট তৃণমূল বনাম বিজেপির দ্বিমুখী লড়াই হতে চলেছে। তাই পুরসভাগুলির দখল রাখতে এখন থেকেই কোমর বেঁধে নামতে হবে শাসকদলকে। তার জন্য এবারের একুশের সমাবেশ তৃণমূলের সাংগঠনিক বড় পরীক্ষা।

Spread the love