প্রথম পাতা বিনোদন

অন্তর্বাস প্রশ্নের উত্তর দিতে চাননা বিরাট পত্নী অনুস্কা

নিজস্ব প্রতিনিধি : শেষ তাঁকে দেখা গিয়েছিল শাহরুখের সঙ্গে জিরো ছবিতে৷ বক্স অফিসে ছবি মুখ থুবড়ে পড়লেও নাসার বিজ্ঞানীর ভূমিকায় অনুষ্কার অভিনয় কিন্তু দর্শকমনে দাগ কেটেছিল৷ তবে এখনও পর্যন্ত নতুন কোনও প্রোজেক্ট নিয়ে অনুষ্কাকে কথা বলতে শোনা যায়নি৷ তবে যেনো গত কয়েক মাস ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার হতে হচ্ছে বিরাট পত্নী অনুষ্কা।

সম্প্রতি ফিল্ম ফেয়ারের পোস্টার গার্ল হয়েছেন অনুষ্কা। নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে তাঁর নতুন লুকের ছবি। শর্ট ওয়েস্টার্ন আউটফিটে অভিনেত্রীর নিউ লুক যথেষ্টই হট। কিন্তু ডিপ সবুজ, অনেকটা বটল গ্রিন ঘেঁষা সুতোর কাজ করা যে পোশাক অনুষ্কা পরেছেন, সেটা একটু বেশিই ট্রান্সপারেন্ট। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেয়ে গিয়েছে এই একটাই প্রশ্ন। অনুষ্কা আপনার অন্তর্বাস কোথায় আছে?

যদিও অনুষ্কার ফ্যানেরা এ সব ট্রোলিকে পাত্তা দিতে নারাজ। তাঁদের সকলেরই দাবী, অনুষ্কাকে দেখতে অসামান্য সুন্দর লাগছে বলেই এ ভাবে ট্রোল করা হচ্ছে তাকে। তবে নিন্দুদের কাজ ট্রোলিং করা তাই তারা কোন কথা মানতে নারাজ। তাঁদের একটাই কথা, “এমন পাতলা পোশাক প্রকাশ্যে কী ভাবে পরলেন অনুষ্কা?” কেউ বা বলছেন, “এসব আচরণের জন্য অনুষ্কাকে ইনস্টাগ্রামে আনফলো করেছেন রোহিত শর্মা।”

সম্প্রতি, কদিন আগে তাঁকে ইনস্টাগ্রামে আনফলো করেছেন ভারতীয় দলের ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা এবং তাঁর স্ত্রী ঋতিকা।

তবে এইসব বিষয়কে একেবারেই পাত্তা দিতে নারাজ অনুষ্কা। তাঁর মতে, নেটিজেনদের ন্যাক্কারজঙ্ক ভাষার উত্তর দিতে পছন্দ করেন না তিনি। এমনকি তাদের কথা ভাবতে নারাজ অভিনেত্রী।

এক সাক্ষাতকারে অনুষ্কা বলেছেন, ‘সত্যি করে বলতে এই ধরনের নোংরা মন্তব্য নিয়ে কথা বলতে চাই না। সমাজে কিছু মানুষ আছে যারা ট্রোল করে যাবে, তাদের একটা বড় গ্রুপ রয়েছে। যদি তাদের মধ্যে একটুও বুদ্ধি থাকলে তাহলে তাঁরা বুঝবে ট্রোলিং করে কোনও লাভ হয় না। এটার মানে তুমি কাউকে অসম্মান করছ এবং তাঁকে গালিগালাজ করছ। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমরা এমন এক সমাজে থাকি যেখানে এই বিষয় নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হয় না। কোনও দায়িত্ব জ্ঞান থাকে না। দুঃখের বিষয় তারা ভদ্র পোশাক পরে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে নোংরামো করে চলে।এদের আটকানোর কেউ থাকে না।’

 

 

Spread the love