দেশ প্রথম পাতা

ন্যায় পেলনা উন্নাওয়ের ধর্ষিতা, বিচারপতিকে লেখা তার চিঠি পৌঁছালো না ঠিক সময়ে!

নিজস্ব প্রতিনিধি : দেশের প্রধান বিচারপতিকে উন্নাও গণধর্ষণ কাণ্ডের নির্যাতিতা লেখা চিঠি পেতে এত দেরি কেন? গত ১২ জুলাই সে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে চিঠি লিখে জানিয়েছিল, আমি খুব বিপদে পড়েছি। কিন্তু প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের সামনে এতদিন চিঠিটি পেশই করা হয়নি। সড়ক দুর্ঘটনার ২ দিন পরে তাঁর কাছে পৌঁছাল তা নিয়ে ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ে বুধবার সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘‘আমি আজ সকালে খবরের কাগজে চিঠির কথা পড়লাম। গতকালই এই চিঠির বিষয়টি কানে এসেছিল। কাগজ পড়ে মনে হচ্ছে, আমি হয়ত চিঠিটা ইচ্ছাকৃত চেপে গিয়েছি। কিন্তু ওই চিঠি আমি হাতেই পাইনি। ধ্বংসাত্মক এবং বিভ্রান্তিকর পরিবেশেই গঠনমূলক কাজ চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করি আমরা। সে ক্ষেত্রে মাঝেমধ্যে এমন ঘটনা ঘটে।’’ ‘একইসঙ্গে উন্নাওয়ের ধর্ষণ মামলা কতদূর এগিয়েছে, তা জানার জন্য তিনি সেক্রেটারি জেনারেলের কাছে স্ট্যাটাস রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছেন। সেই রিপোর্টও বৃহস্পতিবারই সুপ্রিম কোর্টে পেশ করা হবে।’

Image may contain: 2 people

নির্যাতিতার পরিবারের পক্ষ থেকে প্রধান বিচারপতির কাছে নিরাপত্তা চেয়ে চিঠি লেখেন খোদ নির্যাতিতা, “আপনি দয়া করে আমার পরিবারের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করুন। ওরা আমাদের বাড়িতে এসে হুমকি দিয়ে গিয়েছে। বলেছে, মামলা তুলে না নিলে, আমার এবং আমার পরিবার লোকজনকে মিথ্যে মামলায় জেলে ভরে দেবে।”প্রধান বিচারপতিকে লেখা চিঠিতে ৭ ও ৮ জুলাইয়ের দুটি ঘটনারও উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হয়, বিজেপি বিধায়কের ভাই মনোজ, তাঁর সহকর্মী শশী সিং-এর স্বামী ও ছেলে উন্নাওয়ের ধর্ষিতার বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেয়। কুলদ্বীপের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার না-করলে তার কঠিন খেসারত দিতে হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তাঁরা। নিত্যদিন হুমকির মুখে পড়ে উত্তরপ্রদেশ পুলিশকেও সব ঘটনা জানানো হয়েছিল বলে দাবি করেছে ধর্ষিতার পরিবার। রায়বরেলিতে রবিবার গাড়ি ও ট্রাকের সংঘর্ষে উন্নাওয়ের ধর্ষিতার গুরুতর জখম হওয়ার ঘটনায় ধর্ষণে মূল অভিযুক্ত বিজেপি বিধায়ক কুলদ্বীপ সিং সেঙ্গারের বিরুদ্ধে FIR দায়ের করে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে। রবিবারের ঘটনার পর ধর্ষিতার কাকার অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর বিরুদ্ধে নয়া FIR দায়ের হয়। আর যোগী রাজ্যে উন্নাওয়ের ধর্ষিতার দুর্ঘটনা পরেই সরব হয় দেশের সমস্ত বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীরা। মঙ্গলবার তার আঁচ পড়ল লোকসভা অধিবেশনে।উন্নাও ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন কংগ্রেসের লোকসভার দলনেতা অধীর চৌধুরী। উন্নাওয়ের ঘটনার জন্য ‘দেশের মানুষের মাথা লজ্জায় হেঁট হয়ে গিয়েছে’ বলে মন্তব্য করেন বহরমপুরের সাংসদ।

উন্নাওয়ের ঘটনাকে নাগরিক সমাজের ‘কলঙ্ক’ উল্লেখ করে সঠিক ‘CBI তদন্তে’র দাবি করেন অধীর চৌধুরী। এই ঘটনায় সংসদে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতিও দাবি করেন তিনি। যদিও ঘটনার পরপরই সিবিআই তদন্তে সহযোগীতার কথা জানিয়েছে যোগী প্রশাসন। তাদের দাবি, নিগৃহীতার পরিবার যদি চায় তাহলে সরকারেরও সিবিআই তদন্ত করাতে কোন আপত্তি নেই। আজ সংসদের অধিবেশন শুরুর আগেই গান্ধী মূর্তির পাদদেশে উন্নাওয়ের ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কংগ্রেস, DMK, BSP এবং সমাজবাদী পার্টির সাংসদরা। প্ল্যাকার্ড হাতে উত্তরপ্রদেশের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিরোধী সাংসদরা।

 

Spread the love