করোনা দক্ষিণবঙ্গ প্রথম পাতা

বড়মা হাসপাতালে দুই করোনা রোগী এসে বলেন তাঁরা করোনা পজিটিভ।

সোমবার সকালে আর পাঁচ জন রোগীর মতোই পূর্ব মেদিনীপুরের বড়মা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে এসেছিলেন তাঁরা। কিন্তু তাঁদের কথা শুনে কার্যত চক্ষু চড়কগাছ সকলের। তাঁরা  বলেন, তাঁরা করোনা পজিটিভ। ১২ জুন চেন্নাইয়ের ল্যাবে লালারসের নমুনা পরীক্ষা করেছিলেন, ১৩ তারিখ রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তার পরে এতটা পথ গণপরিবহণে করে পেরিয়ে এসে পৌঁছেছেন নিজের জেলায়! প্রশ্ন উঠেছে, করোনা পজ়িটিভ জানার পরেও কী করে এমনটা করতে পারে কেউ।

সূত্রের খবর, ওই দুই যুবক জানান, পূর্ব মেদিনীপুর থেকে তাঁরা ৯ জন চেন্নাইয়ের চিঙ্গুলপেটের একটি কারখানায় কাজ করতেন। সেখানে একজনের করোনা ধরা পড়ায় সকলের নমুনা পরীক্ষা করানো হয়, তাঁদের দু’জনেরই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এর পরেই তাঁরা রবিবার, ১৪ জুন চেন্নাই থেকে রাত ১০টায় ইন্ডিগোর ৬৩৮৫ বিমানে রওনা দিয়ে কলকাতা পৌঁছন। ১৫ তারিখ অর্থাৎ আজ ভোরে ভাড়া গাড়িতে চেপে পৌঁছন মেদিনীপুরের এই হাসপাতালে। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরে হইহই পড়ে গেছে সব মহলে। এই গোটা পথে ওই দুই যুবক কত জনের সংস্পর্শে এসেছেন, তা ভেবে উঠতে পারছেন না কেউ। বিষয়টি সামনে এনেছেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও সব জানিয়েছেন তিনি। তাঁর দাবি, কেন্দ্রীয় সরকার ও অসামরিক বিমান পরিবহণ দফতরের দায়িত্বজ্ঞানহীনতার কারণেই এমনটা হল! শুভেন্দু প্রশ্ন তোলেন, দু-দু’টো বিমানবন্দর পার করলেন কী করে দুই করোনা রোগী! এই ব্যক্তিদের সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন তাঁদের সংক্রমণ হলে তার দায় কে নেবে? তিনি বলেন, এই স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন ক্ষমার অযোগ্য।

Spread the love