জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

‘জগন্নাথ দেবের’ স্মরণেও বাংলার রথ নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি দড়ি টানাটানি

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘রথ ভাবে আমি দেব, পথ ভাবে আমি, মূর্তি ভাবে আমি দেব, হাঁসে অন্তর্য়ামী।’ প্রবাদটি আজ মিলেমিশে একাক্কার হয়ে গিয়েছে বিশেষত বাংলার ক্ষেত্রে।রথযাত্রা, সারা দেশের পাশাপাশি বাংলার মাটিতে ধুমধাম করে পালন করলেন রাজবাসী।কিন্তু উৎসবেও যেন রাজনীতি তাঁর নিজের খেয়ালেই এগিয়ে চলল। বৃহস্পতিবার সকালে প্রতিবারের মতো এবারেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রথের রশিতে হাত দিয়ে কলকাতায় ইসকনের রথের শুভ সূচনা করেন।তারপর সেখান থেকে তিনি পৌছে যান হুগলীর মাহেশে। সেখানেও রথের দড়িতে টান দিয়ে শুভ সূচনা করেছেন। শুধু মুখ্যমন্ত্রী নন, শহর-শহরতলীর বিভিন্ন প্রান্তে তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীরা।

Image may contain: 8 people, people standing and flower

ধুমধাম করে পালন করেছেন রথযাত্রা উৎসব।মেদিনীপুরে রথযাত্রা উৎসবে শুভেন্দু অধিকারীকে দেখে বোঝার উপায় নেই তিনি রাজ্যের গুরুত্বপূর্ন দফতরের মন্ত্রী।সল্টলেকে আবার রথ উৎসবে সামিল হতে দেখা গিয়েছে সুজিত বসু, ফিরহাদ হাকিমের মতো মন্ত্রীদেরও। তালিকায় বাদ যান নি আরেক মন্ত্রী স্বপন দেবনাথও।তিনিও বর্ধমানে রথের উৎসবে নিজে সামিল হয়েছিলেন।তবে এইসবের মধ্যেও এবারে রথের দড়ি টানতে মাঠে নেমে পড়লেন বিজেপি নেতারাও। জানা গিয়েছে, রাজ্যের যেসব প্রান্তে বিজেপি ভালো ফল করেছে সেইসব এলাকায় রথের রশি টানতে ময়দানে ঝাঁপিয়েছেন গেরুয়া সাংসদ থেকে শুরু করে নেতারাও।

কলকাতার একপ্রান্তে যখন ইসকনের রথের রশি টানছেন মমতা বন্দোপাধ্যায় তখন সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে আবার রথযাত্রার সূচনা করেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। তাঁর সঙ্গে ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা অরবিন্দ মেনন।রথের রশি ধরে টানার পর বেশ কিছুক্ষণ ছিলেন মুকুল রায়। তারপর চলে যান তিনি। তবে আগাগোড়া ছিলেন অরবিন্দ মেনন।   এদিন সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে রথযাত্রা ছিলেন প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ বিজেপির উত্তর কলকাতা নেতারা।এই ছবি দেখে অনেকেই মনে করছেন, জগ্গনাথ দেব রথে বসেই দেখতে পারছেন বাংলার কোন দল তাঁকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে শাসক না বিরোধী।যদিও অনেকে আবার মনে করছে, রথযাত্রার মধ্যে অহেতুক রাজনীতি খোঁজা ঠিক নয়।

 

 

 

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।