জেলা প্রথম পাতা

সতর্কবার্তাকে উপেক্ষা করেই বিপত্তি! বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ ২৭ মৎসজীবী

নিজস্ব প্রতিনিধি—  আবহাওয়া দফতরের সতর্কবার্তাকে কার্যত অমান্য করেই বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন কাকদ্বীপের ৬১ জন মৎসজীবী। আর তাতেই ঘটে গেল বিপত্তি। ফিরে আসার সময় ৪টে ট্রলার উল্টে গেল। সব মিলিয়ে চারটি ট্রলারে মোট ৬১ জন মৎস্যজীবী ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। শেষ পাওয়া খবরে ৩৪ জনকে উদ্ধার করা গেলেও এখনও নিখোঁজ ২৭ জন মৎসজীবী। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার মধ্যরাতে। বাংলাদেশের কাছে হাঁড়ি ভাঙ্গা চরের কাছে দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিখোঁজদের সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছেন উপকূলরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা।

কাকদ্বীপ ফিসারম্যান অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক বিজন মাইতি জানিয়েছেন, ১ জুলাই থেকে আবহাওয়া দফতরের নিষেধাজ্ঞা চলছে সমুদ্রে যাওয়ার ব্যাপারে। তা সত্ত্বেও কয়েকটি ট্রলার রবিবার চলে যায় মাঝসমুদ্রে। কিন্তু পশ্চিমা বাতাসের তোড়ে বাংলাদেশের দিকে ঢুকে যায় ট্রলারগুলি। তখন খেই হারিয়ে উপকূলে ফেরার চেষ্টা করে তারা। কিন্তু তার আগেই উথালপাথাল সমুদ্রে ডুবে যায় চারটি ট্রলার। ৩৪ জনকে উদ্ধার করা গেলেও, বাকিরা এখনও নিখোঁজ।

সূত্রের খবর, নিখোঁজ চারটে ট্রলারের নাম হল, এফবি দশভুজা, এফবি নয়ন, এফবি বাবাজি, এফবি জয়জগী। প্রথম ট্রলারে ১৫ জন মৎস্যজীবী ছিলেন, তাঁদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত চার জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। ১১ জন নিখোঁজ। দ্বিতীয় ট্রলারে ছিলেন ১৬ জন মৎস্যজীবী। ওই ট্রলারটি সহ সকলেই নিখোঁজ। তৃতীয় ট্রলারটিও ১৫ জন মৎস্যজীবী-সহ ডুবে গিয়েছে। চতুর্থ ট্রলার এফবি জয়জগী থেকে ১৫ জন উদ্ধার হলেও ট্রলারটি এখনও নিখোঁজ।

হাড়হিম করা ভিডিওটা দেখুন

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।