দেশ প্রথম পাতা

অবস্থা সঙ্কটজনক, তবু দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হবে না নির্যাতিতাকে! পরিবারের ইচ্ছাকেই মেনে নিল সুপ্রিম কোর্ট

নিজস্ব সংবাদদাতা: দিল্লির এইমসে আনা হবে না, বরং লখনউয়ের কিং জর্জ মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটিতেই চিকিৎসা চলবে  উন্নাও ধর্ষণ কাণ্ডে নির্যাতিতা তরুণীর, এমনটাই স্পষ্ট জানিয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত। নিগৃহীতাকে ‘এয়ার লিফট’ করে দিল্লি নিয়ে আসা যায় কি না সে বিষয়ে ধর্ষিতা তরুণীর পরিবারের সঙ্গে আগেই কথা বলে সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতি জানান, তরুণীর চিকিৎসার জন্য অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন রয়েছে কি না সেটা দেখা হবে। এইমস-এর সঙ্গে কথাও বলে আদালত। শুক্রবার, শীর্ষ আদালতের তরফে জানানো হয়, নির্যাতিতার পরিবারের ইচ্ছা লখনউতে চিকিৎসা চলুক তরুণীর।এরপরই এবিষয়ে স্থগিতাদেশ জারি করে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। এ দিন নির্যাতিতার কাকাকে রায়বরেলীর জেল থেকে তিহার জেলে স্থানান্তরিত করার নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

উল্লেখ্য, নির্যাতিতার কাকাকে মিথ্যে মামলা দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে বলে অভিযোগ তাঁর পরিবারের। গত রবিবারে নির্যাতিতার গাড়ি দুর্ঘটনার মুখে পড়ায় জেল থেকেই ষড়যন্ত্রের অভিযোগ   করেছিলেন নির্যাতিতার কাকা। তাঁর অভিযোগ, বিজেপি বিধায়ক (বর্তমানে বহিষ্কৃত) কুলদীপ সিং সেঙ্গার জেলে থেকেই এই ষড়যন্ত্র করে। সেঙ্গারের বিরুদ্ধে একাধিক প্রমাণ তাঁর হাতে রয়েছে বলে দাবি করেন নির্যাতিতার কাকা। সলিসিটর জেনারেল তুষার মেটা জানিয়েছেন, নির্যাতিতার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। তাঁকে ভেন্টিলেশনেই রাখা হয়েছে।সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ, নিগৃহীতার পরিবারের নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের দায়িত্ব দিতে হবে। এবং তাঁর পরিবারের নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে যে মামলা তার শুনানি হবে শুক্রবার প্রধান বিচারপতির এজলাসেই।তবে লখনউয়ের কিং জর্জস‌্ মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটির তরফে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয়, নির্যাতিতা এবং মহেন্দ্র সিংহ নামের ওই আইনজীবী, দু’জনের অবস্থাই সঙ্কটজনক। ভেন্টিলেটর থেকে সরিয়ে আনা হয়েছে মহেন্দ্র সিংহকে। নিজে শ্বাস নিতে পারলেও, এখনও অক্সিজেন দিতে হচ্ছে তাঁকে। তবে নির্যাতিতার শারীরিক অবস্থার তেমন উন্নতি হয়নি বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাঁরা জানান, এখনও ভেন্টিলেটরেই রয়েছেন ওই তরুণী। জ্বর রয়েছে গায়ে। বৃহস্পতিবার একটি অস্ত্রোপচার হয়েছে তাঁর।যদিও অন্যদিকে বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে লখনউয়ের জেলাশাসক রাজ শর্মা জানান, ‘‘নির্যাতিতা ও তাঁদের পারিবারিক আইনজীবী, চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন দু’জনেই। মেয়েটির পরিবার হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবায় সন্তুষ্ট।’’

 

Spread the love