কলকাতা প্রথম পাতা

স্যাটের সিদ্ধান্তের সাথে বেতন কমিশনের কোন সম্পর্ক নেই! জল্পনার অবসান ঘটালেন কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকার

নিজস্ব প্রতিনিধি: শুক্রবার যখন রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের কেন্দ্রের হারে মহার্ঘ ভাতা তথা ডিএ দেওয়ার ব্যাপারে স্পষ্ট নির্দেশ দিল স্যাট, তখন মধ্যমগ্রামে প্রশাসনিক বৈঠকে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই এই বিষয়ে তাঁর প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে মমতা বলেন–

  • দিতে তো চাই। কিন্তু টাকা আসবে কোথা থেকে? এ বছর ৫৬ হাজার কোটি টাকা ঋণ শোধ করতে হবে। তার উপর পে কমিশন রয়েছে।
  • সরকারের টাকার অবস্থা ভাল নয়। চাইলেই টাকা পাওয়া যাবে না।
  • প্রত্যেকটা খরচ আগে থেকে ভেবে করতে হবে। আট বছর আগে মাসের এক তারিখে মাইনে হতো না। এখন হয়। আট বছরে গোটা রাজ্য ঘুরে দাঁড় করিয়ে দিয়েছি।

মহার্ঘ ভাতা প্রশ্নে রাজ্য প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল তথা স্যাট-এর নির্দেশের পর এ বার ষষ্ঠ বেতন কমিশন নিয়ে নবান্নের উপর চাপ বহুগুণে বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে।সেই সঙ্গে কর্মচারী মহলে স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, নতুন হারে ডিএ কবে থেকে দেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার? তা কি ষষ্ঠ বেতন কমিশনে মূল বেতনের সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হবে? না কি বেতন কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের আগেই ডিএ ঘোষণা করে দেবে নবান্ন? কর্মচারীদের বড় অংশের বক্তব্য, তাঁদের পে কমিশন দ্রুত লাগু করা তাঁদের বৃহত্তর দাবি।এ ব্যাপারে রাজ্য সরকার গঠিত ষষ্ঠ বেতন কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকার  বলেন, “স্যাট যা বলেছে তার সঙ্গে বেতন কমিশনের কোনও সম্পর্ক নেই। তবে বছরে দু’বার মহার্ঘ ভাতা বাড়ানোর যে কথা ট্রাইবুনাল বলেছে সেটা বেতন কমিশনের সুপারিশে রাখা যায় কিনা সেটা ভেবে দেখা হবে”।এ দিন প্রশাসনিক ট্রাইবুনালের রায় ঘোষণার সময় মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য নবান্নে ছিলেন না। তিনি প্রশাসনিক বৈঠকের জন্য মধ্যগ্রামে ছিলেন। সেখানে স্পষ্ট কিছু না বললেও, তাঁর একটি কথা থেকে অনেকে মনে করছেন যে দ্রুত ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ ঘোষণা হয়ে যেতে পারে।

 

Spread the love