জেলা প্রথম পাতা

দলীয় পতাকা লাগানোকে কেন্দ্র করে রাতভর উত্তেজনা ভাটপাড়া এলাকায়

নিজস্ব প্রতিনিধি— ভোট-প্রচারে দলীয় পতাকা লাগানো নিয়ে বচসায় জড়াল বিজেপি-তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। বিজেপির এক মহিলাকর্মীকে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগণার ভাটপাড়ায়। জানা গিয়েছে, রবিবার রাত ১০টা নাগাদ ভাটপাড়া পৌরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপির কর্মী, সমর্থকরা ভোটের প্রচারের জন্য দলীয় পতাকা লাগাচ্ছিল। ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তথা তৃণমূল নেতা মনোজ গুহর বাড়ির সমানে। কাউন্সিলর তাঁর বাড়ির সামনে বিজেপির কর্মী, সমর্থকদের দলীয় পতাকা লাগাতে নিষেধ করেন। এরপর বিষয়টি নিয়ে দুইপক্ষ এক সময় বচসার মধ্যে জড়িয়ে পড়েন। বিজেপির অভিযোগ, বচসার সময় মনোজবাবু ও ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর সত্যেন রায় বিজেপির মহিলা কর্মী সাথি পাইনকে মারধর করেন ও তাঁর শ্লীলতাহানি করেন। এরপর মনোজবাবু ও সত্যেনবাবুর বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংয়ের নেতৃত্বে প্রায় দেড় ঘন্টা ধরে কর্মীরা জগদ্দল থানা ঘেরাও করে। প্রায় দেড় ঘণ্টা থানা ঘেরাও চলে। পরে পুলিশ মনোজবাবু ও সত্যেনবাবুর বিরুদ্ধে এফআইআর নিলে থানা ঘেরাও উঠে যায়।বিষয়টি নিয়ে অর্জুনবাবু জানিয়েছেন, পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ যদি উপযুক্ত ব্যবস্থা না নেয়, তবে সোমবার থেকে বিজেপি অনির্দিষ্টকালের জন্য রেল অবরোধের ডাক দেবে। পাশাপাশি দলের তরফে বিষয়টি নির্বাচন কমিশনে জানানো হবে। অপরদিকে তৃণমূল কাউন্সিলর মনোজবাবু বলেন, “অর্জুন সিং ভিত্তিহীন অভিযোগ করছে। বিজেপির লোকজন আমাদের বাড়ির চালের উপর উঠে দলীয় পতাকা লাগাচ্ছিল। আমার ভাই মৃত্যুঞ্জয় পতাকা লাগাতে নিষেধ করলে বিজেপির ছেলেরা তাকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারে। সে এখন হাসপাতালে ভর্তি।”

এদিকে বিষয়টি নিয়ে রাতভর থমথমে ছিল গোটা ভাটপাড়া এলাকা।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।