আজকের সারাদিন দেশ প্রথম পাতা

বিয়ে ‘বৈধ’ জানিয়ে দিলেন বিচারপতি, পুলিশের সামনেই মার খেলেন বিজেপি নেতার মেয়ে-জামাই

নিজস্ব প্রতিনিধি : দলিতকে বিয়ে করায় নিজের বাবার ভয়েই পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছিল উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক রাজেশ মিশ্রর মেয়ে সাক্ষীকে। পুলিসি নিরাপত্তা চেয়ে আজ এলাহাবাদ হাইকোর্টে দ্বারস্থ হয়েছিলেন সাক্ষী মিশ্র। কিন্তু কোর্ট চত্বরে তাঁর স্বামী অজিতেশ কুমারকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ ওঠে। পাশাপাশি তাঁদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে উত্তর প্রদেশ পুলিসকে নির্দেশ দেওয়া হয়। তা সত্ত্বেও ঠেকানো গেল না অপ্রীতিকর পরিস্থিতি।

স্বামী অজিতেশের সঙ্গে আদালতে এসেও নিগ্রহের হাত থেকে পার পেলেন না তিনি। সোমবার এলাহাবাদ হাইকোর্ট চত্বরেই অপর একদল গুন্ডা মারধর করেছে অজিতেশকে। আদালত চত্বরে আক্রান্ত হলেও, শেষ পর্যন্ত খালি হাতে ফিরতে হয়নি তাঁদের। ঘটনার কথা শুনে তীব্র ক্ষোভপ্রকাশ করেছে আদালত। যুগলকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে ইলাহাবাদ হাইকোর্ট।

বাবার অমতে ‘দলিত’ পাত্রকে বিয়ে। তারপর থেকেই টালমাটাল পরিস্থিতি চলছিলই। কয়েকদিন আগেই ভাইরাল হয়ে ওঠে সাক্ষীর একটি ভিডিয়ো বার্তা। তাতে রাজেশ মিশ্রর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘বাবা,  আমাদের বিয়ে মেনে নাও। যে গুন্ডাকে পাঠিয়েছ, সেই রাজীব রাণা… আমাদের কিছু হলে ওর পুরো পরিবার জেলে যাবে। পালাতে পালাতে আমি ক্লান্ত। পাপা এবং ভিকি, মাননীয় এমএলএ পাপ্পু ভারতৌলজি এবং ভিকি ভারতৌলজি, নিজেরা শান্তিতে থাকো, যত খুশি রাজনীতি করো, আমাদেরও শান্তিতে থাকতে দাও।’’ রাজেশ মিশ্র বরেলীর বিঠারি চেনপুরের বিধায়ক।
এর আগে এদিন খবর ছড়িয়ে পড়ে যে আদালতের বাইরে থেকে মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে অপহরণ করা হয়েছে সাক্ষী ও অজিতেশকে। একটি কালো এসইউভি-তে তাঁদের উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় বলে দাবি করে এক প্রত্যক্ষদর্শী। পরে জানা যায়, অপহৃতরা সাক্ষী ও অজিতেশ নন। তবে তাঁরাও ভিন জাতে বিয়ে করেছেন। সম্ভবত সেজন্যই তাঁদের অপহরণ করেছে। পুলিশ ওই দম্পতির পরিচয় জানায়নি।

Spread the love