দেশ প্রথম পাতা বিনোদন

গাড়ির কাঁচ ভেঙে ৬৫ টুকরো ঢুকে যায় মহিমার মুখে।

সম্প্রতি পিঙ্কভিলার একটি সাক্ষাতকারে জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন মহিমা চৌধুরী। ওই দুর্ঘটনাই তাঁর ফিল্মি কেরিয়ার ধ্বংস করে দেয় বলে জানান মহিমা চৌধুরী। যদিও মনের জোর হারাননি তিনি। মহিমা বলেন, অজয় দেবগণ এবং কাজলের সঙ্গে দিল ক্যা করে-র শ্যুটিং করছিলেন বেঙ্গালুরুতে। ওই সময় হঠাত করেই গাড়ি দুর্ঘটনার সম্মুখীন হন তিনি। দুর্ঘটনার জেরে গাড়ির সামনের দিকের কাঁচ ভেঙে তাঁর মুখে ফুটে যায়। হাসপাতালে যখন পৌঁছন, সঙ্গে সঙ্গে অস্ত্রোপচার করা হয়।

Mamata Didi, you have insulted our poor migrant Bengali brothers and sisters, who wanted to get back to their homes, by calling Shramik Express as Corona Express.

I want to assure you, Mamata didi, that these words of insult will become TMC’s Exit Express from Bengal. pic.twitter.com/bW6LzBThGl

— Amit Shah (@AmitShah) June 9, 2020

জানা যায়, প্রায় ৬৫টি কাঁচ তাঁর মুখে ফুটে গিয়েছে। অস্ত্রপচারের পর অন্ধকার ঘরে থাকার নির্দেশ দেন চিকিতসকরা। বেশ কয়েক বছর তাঁর লেগে যায় ওই ক্ষত সারাতে। একের পর এক প্রজেক্ট হাতে পেয়েও কাজে যোগ দিতে পারেননি। অনেকেই তাঁর চেহারা নিয়ে কুৎসিত মন্তব্যও করেন। তবে এই কঠিন সময়ে ডিজাইনার নীতা লুল্লা তাঁকে সাহস যোগান এবং পাশে থাকেন। এরপর একটু একটু করে মনের জোর ফিরে পান মহিমা। এমনকী, মহিমা ফের নতুন করে কাজ শুরু করুন বলে পরামর্শ দেন নীতা। এরপর ‘ইয়াদ পিয়া কী আনে লাগি’-তে দেখা যায় মহিমা চৌধুরীকে। অক্ষয় কুমারও তাঁর মনের জোর বাড়ান। ফলে ‘ধড়কন’-এ আবার নতুন করে দেখা যায় মহিমাকে। তবে সেই কঠিন সময়কে তিনি ভুলতে পারেননি বলেই জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

Spread the love