কলকাতা প্রথম পাতা

ঘরবন্দি রাজীব, আইনজীবির বাড়িতে গেলে সিবিআইকে জানাতে হবে ১দিন আগে! আদালতের জটে এখনই কাটছে না বন্দিদশা

নিজস্ব প্রতিনিধি: চিটফান্ড তদন্তে রাজ্য সরকার যে স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম গঠন করেছিল, তার প্রধান ছিলেন তৎকালীন বিধাননগরের পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। সিবিআই একাধিকবার আদালতে দাবি করেছে, রাজীবের নেতৃত্বেই তথ্যপ্রমাণ লোপাট করা হয়েছে।তারপর সুপ্রিম কোর্ট রাজীব কুমারের উপর থেকে রক্ষাকবচ তুলে নেওয়ার পরেই, সিবিআই নোটিস পাঠিয়েছিল তাঁকে। সেই নোটিস নিয়ে বারাসত কোর্টেও ধাক্কা খেতে হয়েছিল রাজীবকে। তারপর কলকাতা হাইকোর্ট শর্ত সাপেক্ষে সাময়িক রক্ষাকবচ দেয় কলকাতার প্রাক্তন নগরপালকে। সিবিআই-কে বলা হয়, এখনই গ্রেফতার করা যাবে না রাজীবকে। একই সঙ্গে রাজীবকে আদালত বলে, সিবিআই যখন যখন ডাকবে, তখন তখন হাজিরা দিতে হবে। পাসপোর্ট জমা রাখতে হবে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কাছে। তিনি বাড়িতে রয়েছেন কি না, তা জানতে সিবিআই আধিকারিকদের বাড়ি বয়ে গিয়ে হাজিরা নেওয়ারও অনুমতি দিয়েছিল বিচারপতিদের বেঞ্চ।তবে তাঁর গতিবিধি নিয়ে গত ৩০ মে হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চ যে রায় দিয়েছিল, সোমবারের শুনানিতে প্রায় তা-ই বহাল রাখলেন বিচারপতি মধুমতী মিত্র। কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল রাজীব কুমারের গৃহবন্দি দশা কাটল না। এ দিনের শুনানির পর বিচারপতি জানিয়েছেন, আগামী দু’ সপ্তাহ রাজীবকুমারকে গ্রেফতার করা যাবে না। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, সপ্তাহে যে কোনও দু’দিন রাজীব চাইলে তাঁর আইনজীবীর বাড়ি যেতে পারেন, আইনি পরামর্শের জন্য। অন্য কোথাও নয়। তবে আইনজীবীর বাড়িতে যাওয়ার হলে, তা সিবিআই-কে অন্তত চব্বিশ ঘণ্টা আগে জানাতে হবে, যে তিনি কখন যাচ্ছেন। আগামী বুধবার ফের এই মামলার শুনানি হবে বিচারপতি মধুমতী মিত্রের এজলাসে।

Spread the love