কলকাতা প্রথম পাতা

মেট্রো দুর্ঘটনায় মৃতের সজলের পরিবারের পাশে মুখ্যমন্ত্রী, গাফিলতির অভিযোগ আত্মীয়দের

নিজস্ব প্রতিনিধি : মেট্রোয় মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় যাত্রী মৃত্যুর ঘটনায় শোকপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার পার্কস্ট্রিট মেট্রো দুর্ঘটনায় মৃত সজল কাঞ্জিলালের বাড়িতে গেলেন বিধায়ক জাভেদ খান ও সাংসদ মালা রায়। রাজ্য সরকারের তরফে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দেন তাঁরা। আজ, রবিবার পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী-সহ বামেদের প্রতিনিধিদলও মৃতের বাড়িতে যাবে বলে জানা গিয়েছে।

গতকাল মালা রায় সজলবাবুর পরিবারকে বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন তিনি ও তাঁর দল সজলবাবুর পরিবারের পাশে রয়েছেন। তিনি আস্বাস দিয়েছেন যে, যা ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ দেবেন। হঠাৎ একজন সুস্থ্য মানুষ এভাবে চলে গেলেন এটা খুবই দুঃখের।’

অন্যদিকে, জাভেদ খান বলেন, এটা দুর্ঘটনা নাকি গফিলতি তা তদন্ত করা হবে। খুবই দুঃখজনক ঘটনা এটা।

এ দিন পৌনে সাতটা নাগাদ পার্ক স্ট্রিট থেকে কবি সুভাষগামী মেট্রোয় ওঠার চেষ্টা করতে গিয়ে সামনের দিক থেকে তৃতীয় কামরার দরজায় হাত আটকে যায় সজলবাবুর। মেট্রো চলতে শুরু করলে দরজার রবার আঁকড়েই ঝুলে থাকেন সজল। টানেলে ঢুকে পড়ে বেশ কয়েকটি কামরা। বিপদ বুঝে আচমকা ব্রেক কষেন মোটরম্যান। লাইনে পড়ে যান ঝুলতে থাকা সজলবাবু। জোরে ব্রেক কষার ফলেই সম্ভবত ভারসাম্য রাখতে পারেননি ৬৬ বছরের ওই ব্যক্তি। মেট্রো কর্তৃপক্ষের অনুমান, পড়ে গিয়ে থার্ড লাইনে বিদ্যুত্‍স্পৃষ্ট মৃত্যু হয় তাঁর।

সজল কাঞ্জিলালের এক আত্মীয় বলেন, দরজায় হাত আটকে গিয়েছে অথচ ট্রেন ছেড়ে দিল। এতো সব যাত্রীদের জন্য বিপদের খবর। এবার তো প্রাণ হাতে নিয়ে ট্রেনে চড়তে হবে যাত্রীদের।

প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রীদের অভিযোগ,  একে তো স্বয়ংক্রিয় দরজার সেন্সর কাজ করেনি, অন্যদিকে খবর পেয়েও ট্রেন থামাননি চালক। সজল বাবুকে নিয়েই ঘষটাতে ঘষটাতে ট্রেন গেছে অনেকটা দূর। সজল বাবুর দেহ উদ্ধারের পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন যাত্রীরা।  তাঁদের অধিকাংশের অভিযোগ, কখনও রেক বিকল, কখনও ধোঁয়া, যাত্রীদের নিরাপত্তা কোথায়। এক জন যাত্রীর হাত ভিতরে থাকা অবস্থায় এতটা পথ মেট্রো চললই বা কী করে? তার থেকেও বড় প্রশ্ন, গেট বন্ধ না হওয়ার কোনও সিগন্যালই বা কেন মেট্রোর চালক পেলেন না? প্ল্যাটফর্মে থাকা আরপিএফ কর্মীরাও জরুরিকালীন কোনও ব্যবস্থা নিতে পারেননি কেন, উঠেছে সেই অভিযোগও।

 

Spread the love