করোনা কলকাতা প্রথম পাতা

পরিদর্শনে কেন্দ্রীয় দল, রোগিকে নিয়ে চাঞ্চল্য এম আর বাঙুরে ।

করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সফর নিয়ে চলছে কেন্দ্র-রাজ্য তরজা। তার মধ্যেই করোনা পরীক্ষার কিট নিয়ে কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্র পর্যাপ্ত সংখ্যক কিট পাঠালেও রাজ্য সরকার করোনা পরীক্ষা করছে না বলে অভিযোগ করছিলেন বিরোধীরা। পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হতে শুরু করে বাংলার সাত জেলায় করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যের সঙ্গে কোনও রকম আলোচনা ছাড়াই কেন্দ্রীয় টিম পাঠানো নিয়ে। এ নিয়ে গত দু’দিন সেভাবে মুখ খোলেননি মুখ্যমন্ত্রী।তবে বুধবার তিনি কড়া ভাষায় বিঁধলেন কেন্দ্রকে।

 

এদিন এম আর বাঙুর হাসপাতালে যান কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকরা। সেই সময়েই করোনা আক্রান্ত এক রোগী লোকসমক্ষে বাইরে বেরিয়ে আসায় চাঞ্চল্য ছড়াল হাসপাতালে। কেন্দ্রীয় দল থাকার সময়ই এক করোনা পজিটিভ রোগী মাস্ক পরে হাসপাতাল থেকে হেঁটে বেরিয়ে যান। সাংবাদিকরা জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, ‘ভালো লাগছিল না তাই হাঁটতে বেরিয়েছি।’ শুনে উপস্থিত সাংবাদিক-নিরাপত্তাকর্মীদের মধ্যে হইচই পড়ে যায়। এরপর পিপিই পরিহিত হাসপাতাল কর্মীদের ডাকা হয়। তাঁরা এসে রোগীকে নিয়ে যায় ভিতরে।

এরপর এম আর বাঙুর হাসপাতালের চারপাশে চলে স্যানিটাইজ করার কাজ। এদিনই রাজারহাটের কোয়ারানটিন সেন্টারও পরিদর্শনে যায় কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দল। সিএমওএইচ অফিস এবং কয়েকটা কোয়ারেন্টিন সেন্টারেও যাবে কেন্দ্রীয় দল।
এদিকে রাজ্যে ৩২ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁরা মূলত কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, শিলিগুড়ি ও আসানসোলের বাসিন্দা। এবং সংক্রমণ ছড়িয়েছে তাঁদের পরিবারের সূত্র ধরেই। এ দিন ছ’জন ছুটি পেয়েছেন।

 

স্বাস্থ্যভবন সূত্র বলছে, তাঁরা সকলেই সল্টলেকের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। ফলে বর্তমানে মোট ৩০০ জন কোভিড-১৯ নিয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে। মুখ্যসচিব জানান, ক্রমাগত করোনা পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, গড়ে দৈনিক ৪৩০টি করে নমুনা পরীক্ষা হলেও মঙ্গলবার ৭১৩টি এবং বুধবার ৮৫৫টি টেস্ট করা হয়েছে। মালদায় গত তিন দিনে মোট ৮৫টি পরীক্ষা হলেও সব ক’টি নমুনার রিপোর্টই নেগেটিভ এসেছে।

Spread the love