জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

মুকুলের ঘর বেসামাল, তবু কাগজ দেখিয়ে ১০৭ বিধায়ককের বিজেপি যোগের কথা বললেন বিজেপি নেতা

 নিজস্ব প্রতিনিধি: মুকুল-অর্জুনের গড়ে থাবা বসিয়েছে তৃণমূল। ঘড়ির কাটা যেন উল্টো দিকে ঘুরতে শুরু করেছে।বলা যায় ভোটের ফল ঘোষণার পর থেকেই ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের চিত্র যেন হুহু করে পাল্টাতে শুরু করেছিল। দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বসে মুকুল রায় ঘোষণা করেছিলেন হালিশহর, কাঁচড়াপাড়া, ভাটপাড়া পুরসভা তাদের দখলে চলে এসেছে। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে পাল্টেছে রাজনীতিও।হালিশহর ও কাঁচরাপাড়া পুরসভা বিজেপির কাছ থেকে দখল নিয়েছে তৃণমূল। কিন্তু মুকুলের গড়ে যখন দাপটের সাথে ঘুরে দাঁড়াছে তৃণমূল তখন শাসক দলকে চাপে ফেলতে আরও একটা দাবি করে বসলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। বিজেপি নেতার বক্তব্য, ১০৭ জন বিধায়ক যোগ দিতে চলেছেন বিজেপিতে।

লোকসভা ভোটের প্রচারে এসে নরেন্দ্র মোদী দাবি করেছিলেন, তৃণমূলের ৪০ জন বিধায়ক তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ঘোড়া কেনাবেচার অভিযোগ করেছিল তৃণমূল। তবে দিলীপ ঘোষ ও মুকুল রায়দের মুখে প্রায়ই শোনা গিয়েছে, তৃণমূলের বিধায়করা যোগ দিতে চলেছেন বিজেপিতে। এমনকি তৃণমূল নেতাদের ফোনে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছেন বলে দাবি করেন মুকুল রায়। শনিবার সাংবাদিকদের একটি কাগজ দেখিয়ে মুকুল বলেন,’১০৭ জন বিধায়ক আগামী দিনে বিজেপিতে আসছেন’। তবে মুকুলের কথায় সব দল থেকে বিধায়করা তাদের সাথে যোগাযোগ রাখলেও শাসকদল তৃণমূলের বিধায়কদের সংখ্যা অন্য দলের নেতাদের থেকে অনেক বেশী।তবে এই বিষয়ে কিছু বলতে নারাজ শাসক নেতারা।যদিও একাংশের বক্তব্য, তৃণমূলকে চাপে রাখতে পরিসংখ্যান দিয়ে বিধায়ক ভাঙানোর কথা বলছেন তিনি।

Spread the love