দেশ প্রথম পাতা

আস্থা ভোটের জন্য তৈরী দল, কৌশলি কুমারস্বামী! ইস্তফাকাণ্ডে স্থগিতাদেশ সুপ্রিম কোর্টের

নিজস্ব সংবাদদাতা: মঙ্গলবার পর্যন্ত কর্নাটকের বিধানসভার অধ্যক্ষ কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। আজ সুপ্রিম কোর্ট সে কথা জানিয়ে দেয়। আর আজই বাদল অধিবেশনের প্রথম দিনে আস্থা ভোট করার প্রস্তাব রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামী। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, কৌশলী চাল খেললেন কুমারস্বামী। শুক্রবার কর্ণাটক বিধানসভায় বাজেট অধিবেশন চলাকালীন স্পিকার কেআর রমেশ কুমারকে তিনি বলেন, আস্থাভোটের জন্য তৈরি তাঁর দল। কবে আস্থাভোট হবে তার সময় ঠিক করার জন্য স্পিকারকে আবেদন জানান তিনি।

শুক্রবার বিধানসভায় কুমারস্বামী বলেন, “আমি আস্থাভোটের জন্য তৈরি। আপনি সময় ঠিক করুন।” এর আগে বৃহস্পতিবার নিজের ইস্তফা দেওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি সব পরিস্থিতির জন্য তৈরি। আমি এখানে ক্ষমতা দখল করে থাকতে আসিনি।” মুখ্যমন্ত্রীর এই আবেদনের পরে স্পিকার জানিয়েছেন, “যে দিন আমাকে লিখিতভাবে মুখ্যমন্ত্রী আস্থাভোটের কথা বলবেন, তার পরের দিনই আমি বিধানসভায় আস্থাভোটের ব্যবস্থা করব।”অন্যদিকে এদিনই কর্নাটক ইস্যুতে ধীরে চলো নীতি প্রয়োগ করল সুপ্রিম কোর্ট। বিধানসভার স্পিকারের সঙ্গে বিক্ষুব্ধ কংগ্রেস-জেডিএস বিধায়কদের যে সংঘাত তৈরি হয়েছে, সেই বিষয়ে তাড়াহুড়ো করে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথ থেকে সরে দাঁড়াল শীর্ষ আদালত৷ বরং বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার ফের শুনানি হবে বলে জানাল সুপ্রিম কোর্ট। তত দিন পর্যন্ত রাজ্যে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি৷ এছাড়া স্পিকার কে আর রমেশ কুমার আগেই আদালতে জানান যে, বিদ্রোহী বিধায়কদের ইস্তফা প্রসঙ্গে এখনই সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয়। তিনি বলেন, বিক্ষুব্ধ বিধায়করা আদৌ স্বেচ্ছায় ইস্তফা দিয়েছেন, নাকি তাঁদের ইস্তফা দিতে বাধ্য করা হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে হবে।

 

Spread the love