দেশ প্রথম পাতা

ছেলেধরা সন্দেহে কংগ্রেস নেতাদের গাড়ি থেকে নামিয়ে বেধড়ক মারলো জনতা

নিজস্ব সংবাদদাতা: মধ্যপ্রদেশের বেতুল জেলার গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ছেলেধরার গুজব ছড়িয়েছে ব্যাপকভাবে। সেখানকার নওলসিং গ্রামের বাসিন্দারা বৃহস্পতিবার রাতে ছেলেধরাদের ধরার জন্য গাছের গুঁড়ি ফেলে রাস্তা আটকে রাখেন। সেই পথে গাড়ি চড়ে আসছিলেন স্থানীয় তিন কংগ্রেসী নেতা ধর্মেন্দ্র শুক্লা, ধার্মু সিং লানজিওয়ার এবং ললিত বরাসকর। তাঁরা পথ আটকানো দেখে ভাবেন, ডাকাতরা ওইভাবে গাছের গুঁড়ি ফেলে রেখেছে। গাড়ি থামিয়ে লুটপাট করা তাদের উদ্দেশ্য।তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির মুখ ঘুরিয়ে উল্টোদিকে যাওয়ার চেষ্টা করেন। গ্রামের লোকেরা আশপাশেই ছিল। গাড়িতে ছেলেধরারা আছে ভেবে তারা হইহই করে ছুটে যায়। ড্রাইভার জোরে গাড়ি চালিয়ে পালাতে চেষ্টা করেন। কিন্তু গ্রামবাসীরা গাড়িটি ঘিরে ফেলে।পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত শুরু করলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।বেতুলের সিনিয়র পুলিশ আধিকারিক রামস্নেহ মিশ্র বলেন, “ওই এলাকা থেকে বেশ কিছুদিন শিশু চুরির অভিযোগ আসছিল। বৃহস্পতিবার রাতে এই ধরনের একটি খবরকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়। অপহরণকারীদের ধরতে রাস্তা আটকে ছিলেন গ্রামবাসীরা। সেসময় ভুলবশত কংগ্রেস নেতাদের মারধর করা হয়। এই ঘটনায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তদন্তও চলছে।”গত এক সপ্তাহে মধ্যপ্রদেশের ওই অঞ্চলে ছেলেধরা ভেবে মারধরের এক ডজন ঘটনার কথা জানিয়েছে পুলিশ। গত শনিবারই দেওয়াস অঞ্চলে এক প্রতিবন্ধী মহিলা জনতার হাতে মারা পড়ছিলেন। পুলিশের হস্তক্ষেপে কোনওরকমে বেঁচে গিয়েছেন। রাইসেন জেলায় এক মধ্যবয়স্ক ব্যক্তিকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে মারা হয়েছে।

Spread the love