দেশ প্রথম পাতা

কর্নাটকে নয়া মোড়, ইয়েদুরাপ্পার আস্থা ভোটের আগে ১৪ জনের বিধায়ক পদ খারিজ করলেন স্পিকার

নিজস্ব প্রতিনিধি: আস্থা ভোটের একদিন আগে নয়া মোড় কর্নাটকে। ১৪ বিক্ষুব্ধ কংগ্রেস-জেডিএস নেতার বিধায়ক পদ খারিজ করে দিলেন স্পিকার রমেশ কুমার। যার ফলে, কংগ্রেস-জেডিএস জোটের সরকার গড়ার কোনও সম্ভাবনাই রইল না। অন্য দিকে বিজেপিকে সংখ্যালঘু সরকার গড়ার সম্ভাবনা কমে গেল বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন।বেঙ্গালুরুতে সাংবাদিক বৈঠক করে স্পিকার রমেশ কুমার জানান, ১৩ জনের বিধায়ক পদ বাতিল করা হয়েছে। সূত্রের খবর, কংগ্রেস বিধায়ক শ্রীমন্ত পাতিলেরও বিধায়ক পদ খারজি হয়েছে।

কংগ্রেসের ১১ এবং জেডিএস-এর ৩ বিধায়ক রয়েছেন। এনারা হলেন প্রতাপ জি পাতিল, বিসি পাতিল, এস হেব্বার, এসটি সোমশেখর, এম নাগরাজ, শ্রীমন্ত পাতিল এবং জেডিএস-এর এইচ বিশ্বনাথ, কে গোপালাইয়া, নারায়ণ গৌড়া।স্পিকারের এই সিদ্ধান্তে ২২৫ আসনের কর্নাটকে মোট সদস্য সংখ্যা দাঁড়াল ২০৮। স্পিকার এবং মনোনীত সদস্যকে নিয়ে ওই সংখ্যা দাঁড়াল। এর আগে এক নির্দল বিধায়কের পদ খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। তা হলে ম্যাজিক ফিগার দাঁড়াচ্ছে ১০৫। এক নির্দল বিধায়কের সমর্থনে বিজেপি অনায়াসে সংখ্যগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে।পাঁচদিন হয়ে গেল ক্ষমতাচ্যুত হয়েছে কংগ্রেস এবং জেডিএস জোট। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসেছেন বিজেপি নেতা বি এস ইয়েদুরাপ্পা। কিন্তু সরকার বদল হলেও এখনও স্পিকারের পদে ইস্তফা দেননি কে আর রমেশকুমার। রমেশকুমার স্বেচ্ছায় ইস্তফা না দিলে তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হবে বলে রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। সাধারণত শাসক দলেরই কোনও বিধায়ক স্পিকার পদে নির্বাচিত হন। বিজেপি-র বক্তব্য, স্পিকার নিজে না পদ ছাড়লে, তারা প্রক্রিয়া শুরু করবে।

Spread the love