কলকাতা প্রথম পাতা

প্রয়াত দিল্লির ৩ বারের মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত, শোকর্বাতা দিলেন মোদী-রাহুল-শাহরা

নিজস্ব সংবাদদাতা: প্রয়াত হলেন কংগ্রেস নেত্রী শীলা দীক্ষিত। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি দীর্ঘ ১৫ বছর দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। কেরলের রাজ্যপালও হয়েছিলেন। ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে তুলে ধরেছিল। চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি তিনি দিল্লির প্রদেশ কংগ্রেস সভানেত্রী হন। অর্থাৎ বয়স হলেও তিনি রাজনীতিতে ছিলেন সক্রিয়। শনিবার সকালে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুপুরে তিনি মারা যান।বীণ এই কংগ্রেস নেত্রীর প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমেছে দেশের রাজনৈতিক মহলে।দিল্লি কংগ্রেস সূত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরে হৃদরোগজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন দিল্লির তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত। শুক্রবার গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে ফর্টিস এসকর্টস হার্ট ইনস্টিটিউটে ভরতি হয়েছিল। সেখানকার ডাক্তাররা জানিয়েছিলেন তাঁর শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে। অনিয়মিত হৃদস্পন্দনের সমস্যাও ছিল। তাই ভরতি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভেন্টিলেশনে পাঠানো হয় তাঁকে। কিন্তু, শেষ রক্ষা হল না।এই ঘটনার পরেই টুইট করে শোকপ্রকাশ করা হয় কংগ্রেসের তরফে। তাতে লেখা ছিল, ‘শীলা দীক্ষিতের মৃত্যুর খবর শুনে আমরা শোকাহত। সারাজীবন ধরে কংগ্রেস করার পাশাপাশি তিনবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন তিনি। যা তাঁকে দিল্লি কংগ্রেসের মুখ করে তুলেছিল। আমরা তাঁর পরিবার ও বন্ধুদের গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। এই কঠিন সময়ে তাঁরা নিজেদের সামলাতে পারবেন বলেই আশা করছি।’

রাহুল গান্ধী টুইট করেন, ‘শীলা দীক্ষিতজি-র মৃত্যুর খবর পেয়ে আমি পুরোপুরি বিদ্ধস্ত হয়ে পড়েছি। তিনি কংগ্রেস পার্টির প্রিয় কন্যা ছিলেন। যার সঙ্গে আমার খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। তাঁর পরিবার ও দিল্লির নাগরিকদের গভীর সমবেদনা জানাই। তাঁর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করেন। তিনি বলেন, শীলা দীক্ষিতজির মৃত্যুর খবর পেয়ে গভীর দুঃখ পেয়েছি। তিনি ছিলেন আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্বের অধিকারী। দিল্লির উন্নয়নে তাঁর বিশেষ ভূমিকা আছে। তাঁর পরিবারের সদস্য ও অনুগামীদের প্রতি সহানুভূতি জানাই।

 

 

Spread the love