দেশ প্রথম পাতা

নির্মাণকর্মীর পরিচয়ে সেনাক্যাম্পে পাকিস্তানের হয়ে চরবৃত্তি, হরিয়ানা থেকে ধৃত ৩ যুবক

নিজস্ব প্রতিনিধি : পাকিস্তানের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে গ্রেপ্তার হল তিন যুবক। হরিয়ানার হিসারে সেনা চাউনির মধ্যেই পাকিস্তানের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি করছিল ওই তিন যুবক। এমনটাই অভিযোগ সেনার। ধৃতরা হল উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরনগর জেলার বাসিন্দা মাহতাব(২৮) ও  রাকিব(৩৪) এবং শামলী জেলার বাসিন্দা খালিদ(২৫)। ধৃতদের হেফাজতে নিয়ে জেরা করছে পুলিশ।

সেনাবাহিনীর অভিযোগ, বেশ কয়েকদিন ধরে হিসারের সেনাছাউনির ভেতরে একটি মেসের নির্মাণ কাজ চলছিল। সেখানে ওই তিন যুবককে নিয়োগ করেছিল এক ঠিকাদার। ঘনঘন হোয়াটসঅ্যাপ কল থেকেই সন্দেহটা দানা বেঁধেছিল সেনা জওয়ানদের। তিন যুবক ক্যান্টনমেন্টের একাধিক স্টিল ও ভিডিয়ো তুলেছে। তার পর থেকেই ওই তিন জনের গতিবিধির উপর নজর রাখছিলেন তাঁরা। অবশেষে চরবৃত্তির বিষয়টি সামনে আসে। গত ১ অগাস্ট অভিযুক্তদের ১ জন পাকিস্তানে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে ফোন করে। আপাতত তাদের সেনা হেফাজতে রেখে জেরা করা হচ্ছে। পরে তাদের হরিয়ানা পুলিসের হাতে তুলে দেওয়া হবে।  ধৃতদের মোবাইল থেকে ক্যান্টনমেন্টের ছবি, তথ্য উদ্ধার হয়েছে। হোয়াটসঅ্যাপ ও ভয়েস কল থেকে ওই তিন জনের পাক যোগের বিষয়টিও স্পষ্ট বলে দাবি করেছে পুলিশ। ধৃতদের জেরা করে তাদের বাকি সঙ্গীদের খোঁজ করা হচ্ছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের জেরা করে আর কোনও তথ্য পাওয়া যায় কি না তার চেষ্টা করা হচ্ছে। তারা কাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছিল, কী কী তথ্য পাচার করেছে সব কিছু জানার চেষ্টা চলছে।

ধৃত মেহতাবের বাবা হানিফ ছেলের গ্রেফতারের খবর জানতে পারেন গত শুক্রবার। তাঁর দাবি, মেহতাব হয়তো খেয়ালের বসে কিছু ছবি তুলেছে। কিন্তু চবৃত্তির কোনও উদ্দেশ্য তার ছিল না।

এর আগে ১৩ জুলাই হরিয়ানার নারনাউল এলাকা থেকে এক সেনা জওয়ানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ফেসবুকের মাধ্যমে এক বন্ধুর কাছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ফাঁসের অভিযোগ উঠেছে ধৃতের বিরুদ্ধে।

Spread the love