জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

ঘরছাড়া পাখিদের ঘরে ফেরাতে উদ্যোগী গ্রামীণ হাওড়া ।

আমফানের দাপটে শুধুমাত্র সাধারণ মানুষের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এমনটা নয়। লক্ষ্য লক্ষ্য পাখি নীড় ছাড়া হয়েছে। ঝড়ের দাপটে একদিকে যেমন গাছপালা ভেঙে পড়েছে, এরকমই অন্যদিকে পাখিদের বাসায় ভেঙে গিয়েছে। এই পাখিদের কথা ভেবেই হাওড়া শ্যামপুরের একদল যুবক এগিয়ে এলেন মাটির কলসি হাড়ি ও খড় কুটা সহযোগে গাছে গাছে পাখিদের নতুন বাসা বেঁধে দিলেন। পাশাপাশি যে সমস্ত পাখিরা ঝড়ের দাপটে আহত হয়েছিলেন, তাদেরও সেবা শুশ্রূষা করে সুস্থ করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন ওই যুবকের দল। এদের মধ্যে একজন রবীন্দ্রনাথ জানান, পাখিদের বাসা ভেঙে যাওয়ায় তাঁরা এই উদ্যোগ নিয়েছেন। মোট ১০০ টি হাঁড়ি গাছে গাছে বেঁধেছেন। পাশাপাশি হাওড়া জেলা যৌথ পরিবেশ মঞ্চ নামে এই সংগঠন গোটা জেলা জুড়ে পাখির বাসা তৈরি করার কাজ শুরু করেছে।

এই মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক শুভ্রদীপ ঘোষ বলেন, ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবসে গ্রামীণ হাওড়ার জগৎবল্লভপুরের পাতিহাল, মানসিংহপুর ও সাদেশপুরে ৩০টি কৃত্রিম পাখির বাসা বিভিন্ন গাছের ডালে লাগানো হবে। মাটির কলসির মধ্যে ডালপালা দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে এই কৃত্রিম বাসা। অনেক জায়গায় তা টাঙানোও হয়েছে। এই কৃত্রিম বাসায় একটি মাটির পাত্রে জল রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।’ এছাড়াও বিশ্ব পরিবেশ দিবস থেকে গাছ বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। আর শুধু পাখির বাসা তৈরি করেই তাঁদের কাজ শেষ হবে না, সেই বাসা যাতে কেউ নষ্ট না করে সে দিকেও নজর রাখা হবে। পাশাপাশি তাঁদের পরিকল্পনা, ২০২০ সালের মধ্যে হাওড়ার বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ১০ হাজার গাছ লাগানো। ওই সংস্থার সদস্য কল্যাণী পালুই, সায়ন দে, সম্রাট মণ্ডলরা জানান, আমতা, বাগনান, শ্যামপুর-সহ বিভিন্ন জায়গায় তাঁরা গাছে পাখির বাসা তৈরি করে দেবেন। পাশাপাশি বনসৃজনেরও কাজ চলবে।

Spread the love