জেলা প্রথম পাতা রাজনৈতিক রাজ্যের খবর

”জেলায় ফিরে প্রথম দিনেই তৃণমূলের দাবীকে কার্যত স্টেপ আউট করে দিলেন”: বিপ্লব মিত্র

নিজস্ব প্রতিনিধি : জেলায় ফিরে প্রথম দিনেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ সহ জেলার দুটি পৌরসভা যথাক্রমে গঙ্গারামপুর পৌরসভা ও বুনিয়াদপুর পৌরসভা নিজেদের দখলে রাখার তৃণমূলের দাবীকে কার্যত স্টেপ আউট করে বাপি বাড়ী যা-র ঢঙে উড়িয়ে দিলেন বিপ্লব মিত্র। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের সদস্য-সদস্যাদের সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রসঙ্গে বললেন ১৮ জনের মধ্যে ১০ জন থাকলে তো এমনিতেই সংখ্যাগরিষ্ঠ, সেটা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না। শনিবার সকালে শিলিগুড়ি থেকে দক্ষিণ দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে শতাধিক গাড়ী ভর্ত্তি কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এবং দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের দশ জন সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে নিজের জেলায় ফেরেন বিপ্লব মিত্র। বিজেপিতে যোগদানের পরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় বিপ্লব মিত্র-র এই প্রত্যাবর্তনের দিনে এদিন জেলার প্রান্তিক জনপদ কুশমন্ডি বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় বিপ্লব মিত্র সহ বিজেপিতে যোগ দেওয়া দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের দশ সদস্য-সদস্যাদের সম্বর্দ্ধনা জ্ঞাপন করে বিজেপির জেলা নেতৃত্ব।

বিজেপির জেলা নেতৃত্বের কাছ থেকে সম্বর্দ্ধনা গ্রহণ করার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এদিন বিপ্লব মিত্র দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের রাজনৈতিক দখল প্রসঙ্গে বলেন বিজেপির নেতৃত্বে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ চলবে এখন এটাই পরিস্কার ব্যাপার। সেই সঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার যে কটা পঞ্চায়েত সমিতি আছে এবং যে কটা পৌরসভা আছে সবকটাকেই আনতে পারব বলে আমার বিশ্বাস আছে বলে এদিন বিপ্লব মিত্র মন্তব্য করেন। গঙ্গারামপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান প্রশান্ত মিত্র-র বিরুদ্ধে তৃণমূলের অনাস্থা প্রস্তাব আনা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একধাপ এগিয়ে বিপ্লব মিত্র-র সটান বক্তব্য অনাস্থা কোনটাই টিকবে না, অনাস্থা আনলেও যিনি চেয়ারম্যান আছেন প্রশান্ত মিত্র তিনিই চেয়ারম্যান থাকবেন। এদিন থেকে নিজের জীবনের নতুন রাজনৈতিক ইনিংস শুরু করেছি বলে জানানো বিপ্লব মিত্র তৃণমূল শিবিরে যে বড়সড় ভাঙ্গন ধরানোর চেষ্টায় আসরে নামতে চলেছেন তা এদিন তার বক্তব্য থেকেই পরিস্কার। একদা তার হাত ধরে তৃণমূলের টিকিটে নির্বাচিত অনেক জনপ্রতিনিধিকে বিজেপির পতাকাতলে নিয়ে আসার বিষয়ে বিপ্লব মিত্র যে আত্মপ্রত্যয়ী এদিন তার বক্তব্যেও সে ইঙ্গিত ছিল স্পষ্ট। কিন্তু বিজেপিতে যোগদান করা বিপ্লব মিত্রকে বিজেপি দলের কি দায়িত্ব দিতে চলেছে সেটা এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট করে বলা হয়নি বিজেপির পক্ষ থেকে। এই বিষয়ে বিজেপির দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন সময়েই ঠিক ঘোষণা করা হবে, আমাদের রাজ্য সভাপতি সেটা ঘোষণা করে দেবে।

বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন পশ্চিমবঙ্গে যেমন মুকুলদাকে পেয়েছি এবং একের পর একটিতে জয়লাভ করেছি তেমনি বিপ্লব দা-র মতন অভিজ্ঞ নেতাকে পেলাম, তৃণমূল কংগ্রেস আগামী দিনে আর থাকবে না। কুশমন্ডিতে বিজেপির জেলা নেতৃত্বের কাছ থেকে সম্বর্দ্ধনা গ্রহণ করার পর এদিন বিপ্লব মিত্র গঙ্গারামপুরের মহারাজপুর এলাকা থেকে বিজেপির দলীয় কর্মী সমর্থক এবং তার ব্যক্তিগত অনুগামীদের নিয়ে পদযাত্রা করে তার গঙ্গারামপুরে নিজস্ব বাসভবনে যান। বিপ্লব মিত্র গঙ্গারামপুরে ফিরতেই বিপ্লব মিত্র-র অনুগামীরা এদিন উল্লাসে মেতে উঠে। জেলার রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারনা একদা তৃণমূলের কংগ্রসের জন্মদশকে মুকুল রায়-এর সহযোগী বিপ্লব মিত্রকে উত্তরবঙ্গে তৃণমূল শিবিরে ভাঙ্গন ধরাতে উত্তরের চাণক্য হিসাবে ব্যাবহার করতে পারে পদ্ম শিবির।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।