দেশ প্রথম পাতা বিনোদন

ইরফান খানের মৃত্যুতে শোকবার্তা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ।

ইরফান খানের চলে যাওয়া গোটা বিশ্বের সিনেমা জগতের এক অপূরণীয় ক্ষতি। ইরফান খানের মৃত্যুতে শোকবার্তায় এমনটাই লিখলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে লেখেন, ”ইরফান খানের চলে যাওয়াটা গোটা বিশ্বের সিনেমা ও থিয়েটার জগতের কাছে একটা বড় ক্ষতি। তিনি তাঁর বহুমুখী অভিনয় প্রতিভার জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তাঁর পরিবার, বন্ধু, ও শুভাকাঙ্খীদের প্রতি আমার সমবেদনা রইল। ওনার আত্মার শান্তি কামনা করি।”

বুধবার সকালে মুম্বইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ইরফান খান। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৪ বছর। ইরফান খানের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে সিনেমা জগতে।
প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই ইরফানের মায়ের মৃত্যু হয়। তাঁর শেষকৃত্যেও যোগ দিতে পারেননি অভিনেতা। তিনি নিজেও ভুগছিলেন নিউরোএন্ডোক্রাইন টিউমারে। লকডাউনের মধ্যে মঙ্গলবার আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়েন ইরফান খান। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে মুম্বইয়ের ধীরুভাই কোকিলাবেন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আইসিইউতে চলছিল তাঁর চিকিৎসা। তবে চিকিৎসার মাঝেই ছড়িয়ে পড়ে ‘পিকু’ অভিনেতার মৃত্যুর গুঞ্জন। যদিও গুঞ্জনকে নস্যাৎ করে দেন বলিউড অভিনেতার মুখপাত্র। পরে ফের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন তিনি।

২০১৮ সালে প্রথমবার ধরা পড়ে তাঁর নিউরোএন্ডোক্রাইন টিউমার। অসুস্থতা ধরা পড়ার পরই তাঁকে লন্ডনে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই চলছিল তাঁর চিকিতসা। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি এবং পরে সেপ্টেম্বরে লন্ডন থেকে দেশে ফেরেন ইরফান। এরপরই মুক্তি পায় তাঁর ছবি আংরেজি মিডিয়াম। তবে আংরেজি মিডিয়াম-এর পরেই যে এভাবে থেমে তাঁর মতো একজন প্রতিভাবান অভিনেতার দৌড়, তা সম্ভবত কল্পনা করতে পারেননি কেউই। লকডাউনের মধ্যেই চলে গেলেন বলিউডের এই বর্ষীয়ান অভিনেতা।

Spread the love