অফবীট দেশ প্রথম পাতা

বাগ সেওয়ানিয়া এলাকায় এইমস ভোপালের দুই চিকিত্‍সককে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করে পুলিশ।

শারীরিক নিগ্রহের শিকার দুই চিকিৎসক । তাঁদের মধ্যে এক মহিলা ডাক্তারও ছিলেন। জানা গিয়েছে, বুধবার সন্ধের পর বাগ সেওয়ানিয়া এলাকায় দুচাকার গাড়ি নিয়ে এইমস ভোপালের দুই চিকিত্‍সক ফিরছিলেন হাসপাতাল থেকে। রাস্তায় পুলিশ আটকালে, তাঁরা আইকার্ড দেখান। তারপরও লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করে উপস্থিত পুলিশকর্মীরা। ওই চিকিত্‍সকদের অভিযোগ, প্রথমে বাজে ব্যবহার ও তার প্রতিবাদ করলে লাঠি দিয়ে বেদম মারধর করা হয় তাঁদের। পুলিশের মারে জেরে ড.যুবরাজ সিংয়ের হাত ভেঙে গিয়েছে বলে অভিযোগ। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ সুপার সাই কৃষ্ণা এস থোটা।
ড. সিং ও তাঁর সহকর্মী রিতু সোশ্যাল মিডিয়ায় এই মর্মান্তিক ঘটনার ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তীব্র প্রতিবাদ জানান। ঘটনার তদন্ত ও অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানান তাঁরা। তাঁদের কথা, হাসপাতালের এমার্জেন্সি ডিউটি শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন তাঁরা। সেই সময় পুলিশ তাঁদের গাড়ি আটকায়। তাঁদের অভিযোগ, আমরা আমাদের আইডি দেখাই। কিন্তু সেইসব দেখেও আমাদের সঙ্গে বাজে ব্যবহার করতে থাকেন পুলিশকর্মীরা। তারপরই লাঠি দিয়ে বেধরক মারধর করেন তাঁরা। কিছু পুলিশ খুব চেঁচামেচি করে তাঁদের উদ্দেশ্যে বলেন, এঁরা করোনা ছড়াচ্ছে, ডাক্তাররা কি বাইরে ঘুরতে বেরোয় নাকি!
তবে পুলিশের দাবি, সেইসময় কিছু লোক এলাকায় লকডাউনের শর্ত অমান্য করে জমায়েত করেছিল। তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ পিকেট বসে। সেখানে কোনওভাবে ভুল বোঝাবুঝি হয়ে গিয়েছে।

Spread the love