দেশ প্রথম পাতা বিনোদন

পিকু, পান সিংয়ের ইরফান 2011 সালে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান ‘পদ্মশ্রী’তে ভূষিত হন।

বর্ষীয়ান এই অভিনেতার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বলিউড জুড়ে। 2018 সালে নিউরোএন্ডোক্রাইন টিউমার ধরা পড়ে। এরপর তিনি চিকিৎসার জন্য চলে যান লন্ডনে। সেখানেই স্ত্রীর সঙ্গে থাকছিলেন তিনি। চলছিল চিকিতসা। তবে বলিউডের কয়েকজন দুরারোগ্য ক্যানসারে আক্রান্ত হলেও, তাঁরা যখন চিকিতসার পর দেশে ফিরতে শুরু করেন, সেই সময়ও ইরফান কেন ফিরছেন না, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়। কিন্তু তাঁর রোগটা বেশ জটিল বলেই তিনি ফিরতে পারছেন না বলে একাধিকবার নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে জানান পিকুর অভিনেতা।
প্রসঙ্গত, বলিউডের পাশাপাশি হলিউড ও বেশ কিছু ব্রিটিশ ছবিতেও অভিনয় করেছিলেন তিনি। তাঁর মনে রাখার মতো হিন্দি সিনেমা পিকু, পান সিং তোমার, দ লাঞ্চ বকস প্রভৃতি।
ইরফান 2011 সালে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান ‘পদ্মশ্রী’তে ভূষিত হন। এর আাগে 2008-এ ‘স্লামডগ মিনিলওনেয়ার্’ ছবিটির জন্য স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড অ্যাওয়ার্ড ফর আউটস্ট্যান্ডিং পারফরম্যান বাই আ কাস্ট ইন আ মোশন পিরচার পুরস্কার জেতেন। ‘পান সিং তোমার’ সিনেমার জন্য সেরা অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান 2012 সালে। এছাড়া 2012তেই পান সিএনন-আইবিএন ‘ইন্ডিয়ান অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার। 2013-র ‘লাঞ্চ বক্স’ তাঁকে এনে দিয়েছিল একাধিক সম্মান। এই সিনেমাটির জন্য তিনি এশিয়া প্যাশিফিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে আউটস্ট্যান্ডিং অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড এবং দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা অভিনেতার পুরস্কারে ভূষিত হন। তাঁর ঝুলিয়ে দুটি আইফা অ্যাওয়ার্ডও রয়েছে। এছাড়া ‘পান সিং তোমার্’-এর জন্য পেয়েছিলেন ‘টাউমস অফ ইন্ডিয়া’ সেরা অভিনেতার সম্মান। এছাড়া তিনিই একমাত্র বলি অভিনেতা যাঁর দুটি ভিন্ন ছবি অস্কার নমিনেশন পায়।
ইরফান ১৯৬৭-র ৭ জানুয়ারি ভারতের জয়পুরে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ইরফানের মা, বেগম তন্ক হাকিম পরিবার থেকে এসেছিলেন এবং এবং তার মরহুম পিতা জাগিরদার তংক জেলার বাসিন্দা ছিলেন সেখানে পাগড়ির ব্যবসা করতেন। তিনি ১৯৮৪ সালে নয়া তিনি এম এ পড়াকালীনই দিল্লির ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা (এনএসডি) থেকে স্কলারশিপ পান।

Spread the love