আজকের সারাদিন প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

দলেরই কর্মীর মেয়েকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার বিজেপির জেলা সম্পাদক!

নিজস্ব প্রতিনিধি : দলেরই কর্মীর মেয়েকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে অবশেষে পুলিশের জালে বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার সম্পাদক রাজেন্দ্র সাহা। বৃহস্পতিবার রাতে হুগলির তারকেশ্বর থেকে তাকে গ্রেফতার করে হাড়োয়া থানার পুলিশ। এদিকে এই ঘটনার নেপথ্যে তৃণমূলের চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। ঘটনার শোরগোল পড়েছে বসিরহাটে।

বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা সম্পাদকই শুধু নন, গেরুয়া শিবিরের অন্দরে মুকুল রায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত অভিযুক্ত বিজেপি নেতা রাজেন্দ্র সাহা। তিনি যাঁকে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ, তিনি হাড়োয়া এলাকার এক বিজেপি কর্মীরই মেয়ে। ওই বিজেপি কর্মীর বাড়ি হাড়োয়ার রাখালপল্লি  এলাকায়। নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ, হাড়োয়ার গোপালপুরের বাসিন্দা রাজেন্দ্র সাহা ওরফে সমু। অভিযোগ, ঘটনার সূত্রপাত ৬ মাস আগে। পার্টির কাজের অজুহাত দেখিয়ে ওই কিশোরীকে বারাসতের একটি ফ্ল্যাটে নিয়ে যান অভিযুক্ত রাজেন্দ্র। সেখানে জোর করে ‘বিয়ে’ করেন ও ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে।  ঘটনার কথা জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায়।

নির্যাতিতার পাশে দাঁড়ান এলাকার বিজেপি নেত্রী বাসন্তী ঘোষ। তাঁকে রাজেন্দ্র সাহা ও তাঁর অনুগামীরা রীতিমতো হুমকি দিচ্ছিলেন বলে অভিযোগ। না পেরে শেষপর্যন্ত হাড়োয়া থানায় অভিযুক্ত বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর করেন নির্যাতিতার পরিবার। এই ঘটনার পর গা-ঢাকা দিয়েছিলেন বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা সম্পাদক। বৃহস্পতিবার রাতে হুগলির তারকেশ্বর থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বিজেপি নেত্রী বাসন্তী ঘোষ দাবি, রাজেন্দ্রর বিরুদ্ধে আগেও একাধিকবার এই ধরনের অভিযোগ উঠেছে। তবে বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার সভাপতি গণেশ ঘোষ দাবি করেন, এই ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা। ফাঁসানো হচ্ছে তাদের সম্পাদক রাজেন্দ্র সাহাকে।

Spread the love