দেশ প্রথম পাতা ব্যবসা

লকডাউনে বিস্কুট বিক্রির তালিকায় শীর্ষে ‘পার্লে জি’ ।

লকডাউনে একধাক্কায় ‘পার্লে জি’ বিস্কুটের বিক্রি বেড়ে সারা দেশে শীর্ষ স্থান অধিকার করল। মাত্র পাঁচ টাকায় এই বিস্কুট মেলায় অনেকেই খিদে মেটানোর তাগিদে এই বিস্কুট এর দিকে ঝুঁকেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। কেননা এত কম দামে অনাহারে থাকা শ্রমিক বা অন্যান্যদের খিদে মেটানোর চাহিদা পূরন করেছে। অনেকেই বলছেন, পরিযায়ী শ্রমিকেরা, যাঁরা লাখে লাখে ভুখা পেটে রাস্তা পার করেছেন, তাঁদের অনেকেই সামান্য খিদে মেটাতে এই পাঁচ টাকার বিস্কুটের প্যাকেট ব্যবহার করেছেন।

পাশাপাশি, উপার্জনের ঘাটতি থাকায় হয়ত অনেকেই ঝুঁকেছেন মাত্র পাঁচ টাকায় কেনা যায় এমন পার্লে জির দিকে। তাই একাধাক্কায় বেড়েছে বিক্রি। অবশ্য শুধু এই বিস্কুটেরই নয়। পার্লেজির পাশাপাশি বিক্রি বেড়েছে ব্রিটানিয়া, ও পার্লের একাধিক অন্য বিস্কুট ব্র‌্যান্ডগুলির। পার্লে প্রোডাক্টেক ক্যাটগরি হেড ময়ঙ্ক শাহ জানিয়েছেন, ‘‌লকডাউনের সময় সাধারণ মানুষের বিস্কুট হয়ে উঠেছে পার্লে জি। যাঁরা রুটি কিনতে পারছেন না, তাঁদের কাছে এটি পরিবর্ত খাদ্যদ্রব্য হিসাবে গৃহীত হয়েছে। অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা বিপুল পরিমাণে বিস্কুট কিনেছে। সরকারের তরফ থেকেও অনেক অর্ডার পেয়েছে সংস্থা। সব মিলিয়ে বিক্রির পরিমাণ এতটা বেড়ে গিয়েছে। সংস্থার জন্মের পর থেকে এক ত্রৈমাসিকে এত বিস্কুট বিক্রি হয়নি।’‌ সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই ত্রৈমাসিকে পার্লে বাজারে নিজের পাঁচ শতাংশ শেয়ার বৃদ্ধি করেছে। যার ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ এসেছে পার্লে জি বিস্কুটের থেকে। সংস্থাই বলছে, এ অভূতপূর্ব।

Spread the love