দেশ প্রথম পাতা

বন্যায় আটকে পড়া ট্রেনেই উঠল প্রসব যন্ত্রণা, অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে দ্রুত উদ্ধার করে হাসপাতালের পথে এনডিআরএফ

নিজস্ব সংবাদদাতা: ক্রমশ খারাপ হচ্ছে মহারাষ্ট্রের বন্যা পরিস্থিতি। মুম্বই, রত্নগিরি, কল্যাণ-সহ বিভিন্ন জায়গায় ক্রমশ জল বাড়ছে। শনিবার আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এরকম এক অবস্থায় শবিবার বদলাপুর ও ওয়ানগানির মধ্যে আটকে পড়ল মুম্বই-কোলহাপুর গামী মহালক্ষ্মী এক্সপ্রেস। এখনও ট্রেনের মধ্যে আটকে রয়েছেন ৭০০ যাত্রী। শনিবার সকালে তাদের উদ্ধারে নেমেছে বায়ুসেনা, নৌসেনার কপ্টার ও এনডিআরএফ। জানা গিয়েছে, সেখানে রয়েছেন অসংখ্য মহিলা যাত্রী এবং শিশুও। আর তাঁদের মধ্যেই ছিলেন রেশমা কাম্বলে। ন’মাসের অন্তঃসত্ত্বা রেশমার আচমকাই শুরু হয় লেবার পেন। প্রসব যন্ত্রণায় দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনেই ছটফট করতে শুরু করেন তিনি। অসহায় পরিবারের লোকজন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আবেদন জানান সাহায্যের। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী মহালক্ষ্মী এক্সপ্রেসের ডি-১ কামরার যাত্রী রেশমাকে কোলাপুরের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যাতে তিনি সুস্থ ভাবে সন্তানের জন্ম দিতে পারেন। বিভিন্ন সূত্রে খবর, ওই ট্রেনেই আটকে রয়েছেন অন্তত আরও ৯ জন অন্তঃসত্ত্বা। মহারাষ্ট্র রেলের তরফে যাত্রীদের সতর্ক করে বলা হয়েছে, উদ্ধারকারী দল আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব সকলকে উদ্ধার করা হবে। অযথা কেউ যেন প্যানিক করবেন না। বন্যায় আটকে পড়া ট্রেনের যাত্রীরা জানিয়েছেন, ট্রেনের কামরায় জল ঢুকে গিয়েছে। গত ১৫ ঘণ্টা ধরে তাঁদের কাছে কোন  খাবার, পানীয় জল নেই। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বেশ কয়েকজন যাত্রীও। চারপাশে ৫ থেকে ৬ ফুট পর্যন্ত থইথই করছে জল। একেবারে আটকে পড়েছেন তাঁরা। বেরনোর কোনও উপায়ই নেই। যে জায়গায় ট্রেনটি আটকে পড়েছে সেখান থেকে কাছের জনবস্তিও অনেক দূরে। ফলে ট্রেন থেকে নামতে সাহস পাচ্ছেন না যাত্রীরা।

 

 

Spread the love