জেলা প্রথম পাতা

নারদ মামলার চার্জশিট দ্রুত পেশ করবেন তদন্তকারীরা! দেশ ও রাজ্যের স্পিকারকেও চিঠি দিতে পারে সিবিআই

নিজস্ব প্রতিনিধি: তৃণমূলের বেশ কয়েক জন সাংসদ ও মন্ত্রীর বিরুদ্ধে চোদ্দো সালের লোকসভা ভোটের আগে স্টিং অপারেশন চালিয়েছিলেন নারদ নিউজ পোর্টালের সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েল। গোপন ক্যামেরায় তোলা ছবিতে দেখা গিয়েছিল, ম্যাথুর কাছ থেকে টাকা নিচ্ছেন তৃণমূলের সাংসদ-মন্ত্রীরা। পরে ষোলো সালে বিধানসভা ভোটের আগে সেই ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেন ম্যাথু। তা নিয়ে সে বার ভোটে তোলপাড়ও হয়। কিন্তু সেইসব বিষয়ে খুব গুরুত্ব দেয় নি রাজ্যবাসী। ২০১৬ সালের নির্বাচনে বিপুল জনসর্মথন নিয়ে রাজ্যের মসনদে দ্বিতীয়বারের জন্য বসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।হাইকোর্টের নির্দেশে নারদ মামলার তদন্তের দায়িত্ব বর্তায় সিবিআইয়ের উপর। তদন্ত এজেন্সি সূত্রে বলা হচ্ছে, এ ব্যাপারে তৃণমূলের সংশ্লিষ্ট সাংসদ-মন্ত্রীদের তাঁরা ইতিমধ্যেই জেরা করেছেন। ম্যাথুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা এখনও চলছে। কারণ, ম্যাথুর বক্তব্যেও কিছু অসঙ্গতি ধরা পড়েছে। ভিডিও ফুটেজগুলি প্রকাশ করার সময় তিনি বলেছিলেন, তাঁর অনাবাসী ভারতীয় বন্ধুরা স্টিং অপারেশনের জন্য তাঁকে টাকা জুগিয়েছেন। পরে সেই বয়ান বদল করেন ম্যাথু।

কিন্তু ২০১৯ লোকসভা ভোটের আগে থেকেই সেই চিটফান্ড তদন্তে গতি আনতেই তৎপর হয়েছে সিবিআই। ওই মামলায় তথ্য-প্রমাণ ও সাক্ষ্য সংগ্রহের জন্য গত মাসাবধি দিনরাত লেগে রয়েছে এই কেন্দ্রীয় তদন্ত এজেন্সি। তবে সিবিআই সূত্রে খবর, চিটফান্ড তদন্তের আগে নারদ মামলা নিয়ে আদালতে চার্জশিট পেশ করতে পারে তারা। তা হতে পারে খুব শিগগির। ওই চার্জশিট পেশ করার আগে লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা ও পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে অনুমতি চাইতে পারে সিবিআই। কারণ, নারদ তদন্তে যাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাঁদের সবাই হয় লোকসভা বা বিধানসভার সদস্য। সেই কারণে চার্জশিট পেশ করার আগে স্পিকারের কাছে অনুমতি নিতে চায় সিবিআই।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।