দেশ প্রথম পাতা বিনোদন

‘মিস ওয়ার্ল্ড’! বিদেশের মাটিতে ভারতকে গর্বিত করল মূক-বধির বিদিশাই

নিজস্ব প্রতিনিধি : ছোটো বয়স থেকে স্বপ্ন ছিল বড় হয়ে মিস ওর্য়াল্ড হবেন। কিন্তু সেই তো শুনতে পান না। যার ফলে কথাও বলতে পারে না। তা বলে কি স্বপ্ন কি পূরণ হবে না?

তবে ছোট থেকেই নানা সৌর্ন্দ্যর প্রতিযোগিতার বিষয়ে বিভিন্ন বই ভালো ভাবে পড়তেন ও দেখতেন। মেয়ের উৎসাহ দেখেই তাঁর বাবা প্রথমে তাঁকে টেনিসে ভর্তি করে দেন। উত্তরপ্রদেশের বিদিশাই প্রথম ভারতীয় যিনি অর্ন্তজাতিক টেনিস প্রতিযোগিতায় মূক ও বধির বিভাগে ভারতের হয়ে একমাত্র প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। কিন্তু পরে কোমরে চোট পাওয়ায় খেলা ছাড়তে বাধ্য হন তিনি। এরপরই উত্তরপ্রদেশ ছেড়ে চলে আসেন মুম্বাই নয়ডার কাছে থাকতে।

View this post on Instagram

No matter what one wears or how the body looks, what defines a person is their heart and character. All the beauty, grandeur and opulence is futile if a person reeks of selfishness and dishonesty. On the contrary a simple person who is genuine and exudes warmth is what the heart yearns for. Miss Deaf World is not just a beauty pageant, but it is an empowering platform for disabled people who have been shunned by society. Meet any person who is disabled and faced hardships and you would notice their yearning to belong, to be respected and loved. It is what every heart craves. My hard work, efforts and struggles has always had a meaning. It took me long time to figure out that. My journey has taught me to always and always see the good, ignore the negative and empower the weak. That to me is real beauty. What’s the most beautiful quality that you admire in people? Stylist: @ganeshvyas #ganeshvyas Gown: @studio.naffs Jewelry: @suhana_art_and_jewels MUA: @soniavdhingra #share #empower #maketheworldbetter #change #bethechange #vidishabaliyan #missdeafindia2019 #beautypageant #heart #love #modellife #hearingimpairedmodel #character #disabled #hearingimpaired #lovelife #missdeafworld #contestant #disability #ngo #wheelinghappiness

A post shared by Vidisha Baliyan (@vidishabaliyan_missworld2019) on

এরপরই উত্তরপ্রদেশ ছেড়ে আসার পর নয়ডার একটি ইন্সটিটিউটে প্রশিক্ষণ নিয়ে গুরুগ্রাম একটি সৌন্দর্য্ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। সেখান থেকে খবর পেয়েই তিনি নাম লেখান বিশ্ব মূক ও বধির সৌন্দর্য্য প্রতিযোগিতায়। ২২ জুলাই দক্ষিণ আফ্রিকায় ১১ জনের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর জয়ের মুকুট ছিনিয়ে নেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের একটি ছবি শেয়ার করে বিদিশা লেখেন, যেসব স্বপ্ন একদিন দেখতে শুরু করেছিলাম সবে তার শুরু। অনেক লড়াই আর কষ্টের পর আজ এই সম্মান আমি পেলাম। আমার মতো এরকম আরও অনেকেই আছেন যাঁরা সঠিক সুযোগের অভাবে এখনও অন্ধকারে। অনেক পথ চলা বাকি।

Spread the love