জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

মাড়োয়ারিদের শ্মশান অন্য সম্প্রদায়ের মৃতদেহ দাহ করা নিষিদ্ধ?

নিজস্ব প্রতিনিধি : বাংলায় আবার শ্মশানঘাটে নিয়ে জাতিগত বিভেদ। তাও আবার কখন শুনেছেন! সম্প্রতি এমনই দেখা গেল রাণীগঞ্জে শ্মশানঘাটে। তাহলে রাণীগঞ্জের হিন্দুরা কি মৃত্যুর পর শ্মশানঘাট থেকেও বঞ্চিত হবেন? এই প্রবণতা কি ছড়িয়ে দেওয়া হবে বাংলার বুকে?

শ্মশানঘাটে তো পুড়বে হিন্দুদের মৃতদেহ। এবার সেই হিন্দুদের মধ্যে তৈরি হয়েছে জাতিগত বিভেদ। স্বাভাবিকভাবেই উঠছে প্রশ্ন?

আসানসোল-দুর্গাপুর উন্নয়ন সংস্থার চেয়ারম্যানকেও চিঠি দিয়েছে ‘বাংলা পক্ষ’ নামে একটি সংগঠন। সেখান থেকে জানা গিয়েছে, রাণীগঞ্জের একটি শ্মশানঘাটে মাড়োয়ারি সম্প্রদায়ভূক্তদের দাহকার্যের জন্যেই আলাদা করা হয়েছে। সেই জায়গাটিতে বাংলা বা অন্য সম্প্রদায়ের কারও মৃতদেহ দাহ করা যাবে বলে রীতিমতো ফতোয়া জারি করা দিয়েছে।

আর সেই বিষয়টি নিয়েই গর্জে উঠেছে ‘বাংলা পক্ষ’ নামক সংগঠনটি। তাঁদের দাবি, এই ধরণের ব্যবস্থাপনা সামাজিক অভিরুচি ও সংবিধান পরিপন্থী। তাই এই ‘নিয়মের’ বিরুদ্ধে যেন অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

সাধারণ মানুষের মধ্যেও এবিষয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

Spread the love