অফবীট জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

মেয়ের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়ার পরও আদালতে এলে না মনুয়ার বাবা-মা

নিজস্ব প্রতিনিধি : অনুপম সিংহ খুনের মামলায় তাঁর স্ত্রী মনুয়া মজুমদার ও মনুয়ার প্রেমিক অজিত রায়কে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিল বারাসত আদালত। একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় তাদের। অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। গতকালই এই মামলায় দুজনকে দোষী সাব্যস্ত করেন বারাসত আদালতের ফাস্ট ট্র্যাক ফোর্থ কোর্টের বিচারক। খুনের ২৬ মাস পরে এই মামলার সাজা ঘোষণা হল।i

https://www.facebook.com/1563346653708434/posts/2414280628615028/

তবে এই ঘটনার পরই মেয়ে মনুয়ার সঙ্গে সব সম্পর্ক শেষ করে দিয়েছিল তারা তখনই। গতকালই অনুপম সিংহ খুনের মামলায় সাজা ঘোষণার দিনেও মনুয়ার বাবা-মা কোন মতে সামনে এলেন না। এমনই কী তাদের কে আদালত চত্বরে দেখা মেলেনি। সাজা ঘোষণার পরই মনুয়ার বাড়িতে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের সাংবাদিকরা দেখা করতে গেল তাদের বাড়িতে তালাবন্ধ অবস্থা দেখা গিয়েছিল। একজনের দেখা গেলও সে সামনে আসেনি।

২০১৭ সালে তেসরা মে সকালে বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন সংস্থায় কর্মরত অনুপম সিংহের (৩৪) ক্ষতবিক্ষত দেহ মেলে তাঁর হৃদয়পুরের বাড়ি থেকে। তদন্তে জানা যায়, তাঁর মাথায় ভারী অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে খুন করা হয়েছিল আগের রাতেই। এবং এই খুনের ঘটনায় অভিযোগের আঙুল ওঠে তাঁরই স্ত্রী মনুয়া মজুমদার ও মনুয়ার প্রেমিক অজিত রায়ের বিরুদ্ধে। অনুপম খুন হওয়ার ১৩ দিনের মাথায় প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা পুলিশ বারাসত থেকে মনুয়া মজুমদার ও তাঁর প্রেমিক অজিত ওরফে বুবাইকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক ভাবে তাদের মনে হয়েছিল আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত গোলমালে খুন হয়েছেন অনুপম। পরে অবস্থাপন্ন অনুপমের খুনের পিছনে টাকাপয়সার প্রত্যক্ষ সংযোগ খুঁজে পায়নি তারা। নোট বাতিলের সময়ে হুন্ডির সঙ্গে অনুপমের সংস্থার প্রত্যক্ষ যোগাযোগ ছিল বলে জানা গেলেও খুনের সঙ্গে এই বিষয়ে কোনও যোগও পাওয়া যায়নি। পরে এই খুনের ঘটনায় মনুয়া ও তার প্রেমিক অজিতের জড়িত থাকার কিছু প্রমাণ সামনে আসে তাদের।

রাজ্যজুড়ে শিহরণ ফেলে দেওয়া মনুয়াকাণ্ডের রায়দান হয়েছে কাল। আজ সাজা শুনিয়েছেন বিচারক। প্রেমিকের সঙ্গে শলা পরামর্শ করে স্বামী অনুপমকে খুনের জন্য যাবজ্জীবন সাজা হয়েছে স্ত্রী মনুয়া ও প্রেমিক অজিতের। যদিও আদালতের রায়ে নাখুশ নিহত অনুপমের বাড়ির লোক। তাঁরা ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন। সুবিচারের দাবিতে এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে তাঁরা উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলেও জানিয়েছেন।

 

Spread the love