আন্তর্জাতিক ডিফেন্স দেশ প্রথম পাতা

লকডাউনে পাক আকাশসীমায় স্বাগত এয়ার ইন্ডিয়াকে, বিস্মিত পাইলট ।

পাকিস্তানের সীমারেখায় ঢুকতেই অভাবিত প্রশংসা শুনলেন এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানের পাইলট। উল্টো দিকে পাকিস্তানের এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোল। পাইলট শুনলেন, ‘আস্সালাম ওয়ালাইকুম, করাচির এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোল এয়ার ইন্ডিয়াকে স্বাগত জানাচ্ছে। আমরা গর্বিত।’
মুম্বই থেকে ফ্র্যাঙ্কফুর্ট যাচ্ছিল এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানটি। লকডাউন শুরু হওয়ার পরও ভারতে আটকে পড়া ইউরোপীয়দের ফ্র্যাঙ্কফুর্ট পৌঁছে দিতে বিমান চালাচ্ছিল এয়ার ইন্ডিয়া। পৌঁছে দিচ্ছিল ত্রাণসামগ্রীও। এই পরিস্থিতিতে পড়শি পাকিস্তানের কাছ থেকে প্রশংসা শুনে স্বাভাবিকভাবেই খুশি এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলট। সংবাদসংস্থা এএনআইকে ওই সিনিয়র ক্যাপ্টেন বলেন, ‘এটা আমার এবং গোটা এয়ার ইন্ডিয়া পরিবারের কাছে গর্বের মুহূর্ত। ফ্র্যাঙ্কফুর্টে বিশেষ বিমান নিয়ে পাকিস্তানের ফ্লাইট ইনফরমেশন রিজিয়নে ঢুকতেই অন্যরকম অভিবাদন পাই।’

লকডাউনের জেরে সৎকারের জন্য কাঁধ দিয়ে চার মেয়ে শশ্মানে নিয়ে গেলেন বাবাকে।

পাক এটিসি প্রশ্ন করে, ‘নিশ্চিত করুন, ফ্র্যাঙ্কফুর্টে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে এই বিমান যাচ্ছে?’
এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলট নিশ্চিত করতেই উল্টো দিক থেকে বলা হয়, ‘সরাসরি কেবুদ পর্যন্ত অনুমতি দেওয়া রইল।’ ভারতীয় পাইলট পাল্টা নিশ্চিত হয়ে নেন। তখন ফের প্রশংসা করে পাক এটিসির আধিকারিক বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী মহামারীর মধ্যেও আপনারা উড়ান চালু রেখেছেন। এর জন্য আমরা গর্বিত।’ ধন্যবাদ ফিরিয়ে দেন এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলট।
এরপরও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় পাক এটিসি। তেহরানের রেডারের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিয়ে তাদের এয়ার ইন্ডিয়ার দু’টি বিমানের যাবতীয় তথ্যও জানিয়ে রাখে।
পাকিস্তান পেরিয়ে ইরানে ঢোকার পরও বিস্ময় অপেক্ষা করছিল এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটের জন্য। তাঁর অভিজ্ঞতা, ‘ইরান এটিসি এক হাজার মাইলের জন্য সরাসরি অনুমতি দিয়ে দেয়। আমার গোটা কেরিয়ারে এরকম কখনও হয়নি।’ পশ্চিম এশিয়ার কোনও দেশই একটানা এতটা রাস্তার জন্য একবারে অনুমতি দেয় না। একমাত্র নিজেদের দেশের প্রতিরক্ষার সঙ্গে যুক্ত বিমান ছাড়া।
ইরান পেরিয়ে তুরস্ক হয়ে জার্মানিতে ঢোকে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান। সব এটিসিই এই পরিস্থিতির মধ্যে উড়ানের জন্য ধন্যবাদ দেয় এয়ার ইন্ডিয়াকে।

Spread the love