জেলা প্রথম পাতা লগডাউন

লকডাউনের বাজারে হাঁড়িয়ার চাহিদা তুঙ্গে ।

লকডাউনে বন্ধ মদের দোকান। কিন্তু তাই বলে ক্রেতাদের মদ ছাড়া চলবে কি করে? আর তাই দেদার বিকোচ্ছে হাঁড়িয়া। বিদেশি বা দেশী দুই মদের বাজার বজায় রাখছে হাঁড়িয়া। লকডাউনে বন্ধ মদের দোকান। লুকিয়ে চুরিয়ে কেনাকাটাও বন্ধ। শুরু হয়েছে লাগাতার অভিযান। তাই গ্রামেগঞ্জে এখন দেদার বিক্রি হচ্ছে হাঁড়িয়া। বারুইপুর, ক্যানিং, জয়নগর, কুলতলি, বাসন্তী সর্বত্র একই চিত্র। লকডাউন থাকায় হাঁড়িয়া তৈরির মূল উপকরণ ‘বাকর বড়ি’ এবং আতপ চালের জোগাড় করতেই কালঘাম ছুটছে। চাহিদা-জোগানের সামঞ্জস্য না থাকায় হাঁড়িয়ায় চড়া দামে বিকোচ্ছে। তবে তা কালোবাজারে বিদেশি তো বটেই দেশি মদের চেয়েও অনেক সস্তা। তাই দেদার বিকোচ্ছে হাঁড়িয়া। হাঁড়িয়াকে এখানাকার লোকজন পচানি বলে থাকে। দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে সেই পচানিই এখন অনেকের ভরসা।

Spread the love