জেলা প্রথম পাতা

জঙ্গলমহলে লোকসভা ভোটে তৃণমূল সরকারকে এক ইঞ্চিও মাটি ছাড়তে নারাজ বিজেপি

নিজস্ব প্রতিনিধি  : তৃণমূল সরকারের অউন্নয়ন, স্বজন পোষণ, দুনীতিকে হাতিয়ার করে ভোট যুদ্ধে নেমে জঙ্গলমহলের ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের এক ইঞ্চিও মাটি হাত ছাড় করতে নারাজ বিজেপি। পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদির উন্নয়নের ধারার সাথে সামিল হতে সাধারণ মানুষজনকে আহবান জানিয়ে ভোট প্রচার ইতিমধ্যে শুরু করে দিয়েছে ভারতীয় জনতাপার্টির কর্মী সমর্থকেরা। উল্লেখ্য ভোটের নির্ঘন্ট বাজার দশ দিনের মাথায় বিজেপি এরাজ্যের ৪২ টি আসনের মধ্যে ২৭ টি আসনের প্রার্থী নাম ঘোষণা করেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজ্যের ২৭ লোকসভা আসনের মধ্যে ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থীর নামও ঘোষণা করে দিয়েছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এবারে ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির প্রার্থী কুনার হেম্ব্রমের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যখন টিভিতে বিজেপির প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা শুরু হয় তখন থেকে বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা জেলা পার্টি অফিসে বসে টিভিতে চোখ রেখে দেখছিলেন ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম কখন ঘোষণা করা হবে। আর নাম ঘোষণা হওয়ার সাথে সাথেই বিজেপি কর্মীদের মনে ব্যপক উচ্ছ্বাস আর উদ্দিপনা দেখা যায় নেতা কর্মীদের মনে। পরে এদিন রাতেই প্রার্থীর হয়ে দেওয়াল লিখন শুরু করে বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা। পরের দিন অর্থাৎ শুক্রবার সকাল থেকে একেবারে কোমর বেঁধে ভোট প্রচারের ময়দানে নেমে পড়েন বিজেপির নেতা কর্মীরা। প্রার্থীর হয়ে দেওয়াল লিখন করেন বিজেপির জেলা সভাপতি সুখময় শতপথী। বিজেপি সুত্রে জানা গিয়েছে ভোটের দিন ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন জায়গায় প্রার্থীর নামের জায়গা ফাঁকা রেখে দেওয়াল লিখন আগে থেকেই শুরু করে ছিলেন বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা। বৃহস্পতিবার প্রার্থীর নাম ঘোষণা হওয়ার পরেই প্রার্থীর নাম লেখতে শুরু করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। দেওয়াল লিখনের পাশাপাশি কর্মী সমর্থকদের নিয়ে মিটিং করেন ও জেলা সভাপতি। তাতে উপস্থিত ছিলেন লোকসভা নির্বাচনে এবারের প্রার্থী কুনার হেম্ব্রম। এদিন বিজেপির জেলা সভাপতি সুখময় শতপথী বলেন “২৩ তারিখ পর্যন্ত আমাদের কিছু সাংগঠনিক কাজ রয়েছে তারপর থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার শুরু করা হবে। প্রার্থীর নাম ছাড়া আগে থেকেই বুথে বুথে দেওয়াল লিখন হয়েছিল। প্রচারে মুল ইস্যু হবে আট বছর ধরে তৃণমূল সরকারের অউন্নয়ন, স্বজন পোষণ, দুনীতি। তাই নরেন্দ্র মোদির উন্নয়নে সামিল হয়ে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে আরও শক্তিশালী করার জন্য বিজেপির প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জয় যুক্ত করার আহবান জানানো হবে জনতাকে। দীর্ঘ দিন ধরে জঙ্গলমহলের ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রটি আদিবাসীদের জন্য সংরক্ষিত। প্রতিবার এই সিট থেকে জিতে এসেছে কোনও না পার্টির প্রার্থী। কিন্তু কেউ আদিবাসীদের জন্য ভাবেনি। তাদের হয়ে সাংসদে কেউ কোনও কথা বলেননি। তারা দাবি আদায় করে আনতে পারেনি। তাই এবারে আমার ইঞ্জিনিয়ার কুনার হেম্ব্রমকে প্রার্থী করেছি। যিনি সাংসদে নিয়ে আদিবাসী মানুষজনদের হয়ে কথা বলে দাবি দাওয়া আদায় করে নিয়ে আসবে। “

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।