কলকাতা জেলা প্রথম পাতা

জট এবার কাটবেই! ২৮ দিনের মাথায় শিক্ষামন্ত্রীকে সাথে নিয়ে সোজা ধর্মতলায় এসএসসি-র অনশন মঞ্চে পৌছে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি: ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসির শূন্যপদে স্বচ্ছ নিয়োগের দাবিতে প্রেস ক্লাবের সামনে অনশনে বসেছিলেন প্রায় সাড়ে চারশো পরীক্ষার্থী। তাঁদের দাবি, নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীর আপডেটেড প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে হবে। সব পরীক্ষার্থীদের মেধা তালিকা প্রকাশ করতে হবে। ওয়েটিং লিস্টে থাকা সব পরীক্ষার্থীদের চাকরি সুনিশ্চিত করতে হবে।আর বুধবার ২৮ দিনে পড়েছে এই অনশন। মেয়ো রোডে এসএসসি উত্তীর্ণদের অনশন মঞ্চে পৌছে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।অনশনের ২৫ দিন হতেই দানা বাঁধতে শুরু করেছিল ক্ষোভ। ২৬ দিনের মাথায় অনশনকারী চাকুরী প্রার্থীদের বিষয়টি নিয়ে রিপোর্ট চেয়ে তলব করে মুখ্যমন্ত্রীর দফতর।এ দিন অনশন মঞ্চে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী অনশনকারীদের বলেন, “এখন নির্বাচনের আদর্শ আচরণবিধি জারি হয়ে গিয়েছে। তাই কোনও প্রতিশ্রুতি দিতে পারবে না।” কিন্তু আশ্বাস দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, গোটা ব্যাপারটি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করা হবে। ওখানে দাঁড়িয়েই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বলেন, “জুন মাসের মধ্যে কিছু একটা ব্যবস্থা করতে হবে।”শিক্ষামন্ত্রীকে পাশে দাঁড় করিয়ে অনশনকারীদের বলেন, “এত ঝড়, জল বৃষ্টির মধ্যে আপনারা এত কষ্ট করেছেন। আমি তাই ছুটে এসেছি। আমি মনে করি একটা না একটা ব্যবস্থা হবে। আপনারা বিশ্বাস করতে পারেন।” টানা ২৮ দিন অনশন করার জন্য এসএসসি উত্তীর্ণদের অভিনন্দনও জানান মুখ্যমন্ত্রী। তবে মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস পাওয়ার পর অনশন এক্ষুণি উঠছে কি না সে ব্যাপারে বুধবার সন্ধে পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেননি এসএসসি উত্তীর্ণরা। তাঁরা জানিয়েছেন রাতে কোর কমিটির বৈঠক করেই পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করা হবে।এর আগে শঙ্খ ঘোষ থেকে বিভাস চট্টাপাধ্যায়, মন্দাক্রান্তা সেন, বাদশা মৈত্রের মতো ব্যক্তিত্বরা বিভিন্ন সময়ে সমর্থন জানাতে ছুটে এসেছেন চাকরির দাবিতে এই অনশনকারীদের কাছে। পাশে দাঁড়ান বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ও।এবার সরাসরি অনশন মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রীর পৌছে যাওয়া নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

 

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।