ডিফেন্স প্রথম পাতা লগডাউন

লকডাউনের মধ্যেই ফের উত্তপ্ত কাশ্মির, শহিদ ৫ সেনা, খতম ২ সন্ত্রাসবাদী ।

করোনা সংক্রমণ নিয়ে জেরবার বিশ্ব। ভারতেও করোনা রুখতে লকডাউন চলেছে। এর মাঝেই বারবার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে গোলাগুলি ছোঁড়ার পাশাপাশি সীমান্তের ওপার থেকে জঙ্গি অনুপ্রবেশ করানোর চেষ্টা করে চলেছে পাকিস্তান। কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় নাশকতার চেষ্টা চালাচ্ছে পাক জঙ্গিরা। শনিবার সন্ধ্যাতেই কাশ্মীরের হান্দওয়াড়ায় জঙ্গির দলের হদিশ পায় ভারতীয় বাহিনী। হান্দওয়াড়ার একাধিক বাড়িতে ওই জঙ্গিরা আশ্রয় নিয়েছিল বলে খবর পাওয়া যায়। এর পর দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। পাক সন্ত্রাসবাদীর গুলিতে নিহত হন চার জওয়ান। অন্যদিকে নিকেশ করা হয় দুই জঙ্গিকেও। রবিবার সকালে খবরটি পাওয়া গিয়েছে।
সূত্রের খবর, সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তান থেকে জঙ্গিদের একটি দলের কাশ্মীরে ঢুকে পড়ার খবর ভারতীয় সেনাবাহিনীর কাছে ছিল। গোয়েন্দা সূত্রে পাওয়া খবরের ভিত্তিতেই গত কয়েক দিন ধরে হান্দওয়াড়ার ঘন জঙ্গল ও গ্রামগুলিতে জঙ্গিদের খোঁজ চলছিল। অবশেষ শনিবার বিকেলে জঙ্গিদের উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে, অপারেশনে নামে বাহিনী। সংঘর্ষে মৃত্যু হয় চার সেনার। মৃতদের মধ্যে একজন কম্যান্ডিং অফিসার, একজন ২১ রাষ্ট্রীয় রাইফেল, ২ সেনা ও একজন জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের কর্মীর প্রাণহানি হয়েছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। এ দিন সেনার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে সংঘর্ষে চার ভারতীয়ের মৃত্যু হয়েছে। নিহত হয়েছে দুই সন্ত্রাসবাদী।
প্রসঙ্গত, কাশ্মীরের একাধিক জায়গায় একাধিক আত্মঘাতী হামলার ছক কষেছে পাক মদতপুষ্ট সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ। গোয়েন্দারা জইশের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীকে ইতিমধ্যে সতর্ক করেছেন। গোয়েন্দা আধিকারিক জানিয়েছেন, ১১ মে দিনটিকে মাথায় রেখে এরই মধ্যে ২৫ থেকে ৩০ জঙ্গি কাশ্মীর সীমান্ত দিয়ে ভারতে ঢুকে পড়েছে। পাকিস্তান সেনার সাহায্য নিয়ে তারা ভারতে অনুপ্রবেশ করে। একসঙ্গে না ঢুকে, বিগত কিছুদিন ধরে ভাগে ভাগে জইশ জঙ্গিরা ভারতে ঢুকছে। ভারতীয় সুরক্ষা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে একমাসে বড় সংখ্যক জঙ্গি মারাও পড়েছে। সূত্রের খবর, জইশের টার্গেট হল, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ভারতে সত্তরের বেশি জঙ্গি ঢোকানো।

Spread the love