অফবীট আন্তর্জাতিক প্রথম পাতা

সাইবেরিয়ায় তেল মিশে রক্তবর্ণ নদী জল, জীববৈচিত্র্যের ব্যপক পরিবর্তনের আশঙ্কা ।

নদীর রং রক্তবর্ণ অর্থাৎ লাল। আর এই ছবি ধরা পড়েছে উপগ্রহ চিত্রেও। আর এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পরতেই রহস্য উদঘাটন হলো। রাশিয়ার নরিলস্ক নিকেল নামে এক খনন সংস্থা ট্যাংকার লিক করে ডিজেল মিশেছে সাইবেরিয়ার নদীতে। তারজেরেই এই অবস্থা। তেলের ট্যাংকার লিক করে বড়সড় দুর্ঘটনাটি ঘটেছে রাশিয়ার সাইবেরিয়ার নরিলস্ক শহরে। আম্বার্নোয়া নদীর জলে মিশেছে ট্যাংকার থেকে লিক করা ২০ হাজার টন ডিজেল। যারজেরে কার্যত রক্তবর্ণ হয়ে গিয়েছে নদীর জল। দূষণের পরিমাণ এতটাই ভয়াবহ যে স্যাটেলাইট ছবিতেও তা ধরা পড়ছে। ইতোমধ্য়েই এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। লিক হওয়া ডিজেল নদীপথ ধরে পৌঁছে যেতে পারে উত্তরমেরু বা সুমেরু সাগর পর্যন্ত। আর সেটা হলে ভয়াবহ বিপর্যয়ের মুখে পড়বে পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধ।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ২৯শে মে তেল লিক করার ঘটনাটি ঘটে। একটি তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে রাখা তেলের ট্যাংকার লিক করে হঠাৎই ডিজেল বেরোতে শুরু করে। ঠিক কীভাবে ট্যাংকার থেকে তেল লিক করল, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে ২ দিন পরে ঘটনাটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের নজরে আসে। এমনিতেই করোনার প্রকোপে দিশেহারা রাশিয়া। তার উপর এই তেল-বিপর্যয়। এই খবর শুনে ক্ষোভ চেপে রাখতে পারেননি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের মালিকানাধীন সংস্থা নরিলস্ক নিকেলকে একহাত নেন প্রেসিডেন্ট। বিপর্যয়ের খবর জানাতে কেন ২ দিন লেগে গেল সেই প্রশ্নও তোলেন। সমালোচনা করেন স্থানীয় প্রশাসনেরও। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এরফলে জীববৈচিত্র্যের ব্যপক পরিবর্তন ঘটবে। কারণ জল থেকে এই ডিজেল তোলা কার্যত অসম্ভব বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Spread the love