কলকাতা প্রথম পাতা

অন্ধকারেই খাস কলকাতায় অভিযোগ উঠল চোর সন্দেহে গনপিটুনির জেরে খুন বছরের ২৫শের যুবক

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভবানীপুর থানা থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে পিটিয়ে খুন করা হল এক যুবককে। ঘটনাটি ঘটেছে ভবানীপুরের উজ্জলা সিনেমার সামনে। এদিন সকালে ফুটপাথে একটি গাছের সঙ্গে দড়ি দিয়ে বাঁধা অবস্থায় মৃত শঙ্কর মণ্ডলকে (২৫) দেখতে পায় স্থানীয় বাসিন্দারা। এরপরই পুলিশে খবর দেয় তারা। পুলিস এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে। যদিও ঠিক কীভাবে শঙ্করের মৃত্যু হল তা এখনও জানা যায়নি। মৃতদেহ ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে।  জানা গিয়েছে, রবিবার সকাল বেলা পথচলতি মানুষ এক যুবকের নিথর দেহ দেখতে পান ফুটপাথে একটি গাছের নীচে। তাঁদের কাছ থেকেই খবর পেয়ে এ দিন সকালে ওই যুবকের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তদন্তকারীদের সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই যুবককে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।  ২৫ বছর বয়সী ওই যুবকের বাড়ি কালীঘাট থানা এলাকার মসজিদপাড়া বস্তিতে। পুলিশের দাবি, ওই যুবক মাদকাসক্ত। এ দিন দুপুরে প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ দাবি করেছিল, ওই যুবকের দেহে কোনও মারাত্মক আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে তদন্তকারীরা স্বীকার করেন, যুবকের হাতে একটি দড়ির টুকরো বাঁধা অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। তবে গনপিটুনিতে ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত ভাবে বলতে পারেননি তদন্তকারীরা।তবে ওই এলাকার স্থানীয়রা এ দিন অন্য কথা বলেন। তাঁরা দাবি করেন, ভোর চারটে নাগাদ ওই যুবককে গাছে বেঁধে মারধর করছিলেন কয়েকজন যুবক। যাঁরা মারধর করছিলেন, সেই যুবকদের কথা থেকে স্থানীয়রা জানতে পারেন, কোনও একটি মোবাইল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্দেহ করা হয় ওই যুবককে। তারপরই গাছে বেঁধে মারধর শুরু করা হয়।এক তদন্তকারী আধিকারিক বলেন, “আমরা সকালে ওই যুবকের দেহ উদ্ধার করেছি। আমরা গনপিটুনির অভিযোগও খতিয়ে দেখছি।”

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।