কলকাতা জেলা প্রথম পাতা

জায়গা ছাড়ুন না হলে তুলে দেওয়া হবে! পুলিশি হস্তক্ষেপেই চাপ এসএসসির অনশনকারীদের ওপর

নিজস্ব প্রতিনিধি: ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে শহরের রাস্তায় অনশন করছেন এসএসসি উত্তীর্ণরা। শুরু হয়েছিল ৪৫০ জন নিয়ে। কিন্তু তা এখন এসে ঠেকেছে ২০০তে। কেউ অসুস্থতার কারণে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন, কেউ আবার হাসপাতালে। শনিবার বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু অনশনকারীদের সঙ্গে দেখা করেন।

এসএসসি অনশনকারীদের মেয়ো রোড থেকে উঠে যাওয়ার নির্দেশ দিল পুলিশ। শনিবার কলকাতা পুলিশের একটি বিশেষ দল গিয়ে, সেনাবাহিনীর একটি চিঠি দেখিয়ে অনশনকারীদের ওই জায়গা ছেড়ে দেওয়ার কথা বলে। অনশনকারীদের অভিযোগ, একটি চিঠির ফটোকপি দেখিয়ে কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে নাকি অনশনকারীদের বলা হয়েছে, জায়গা না ছেড়ে দিলে তুলে দেওয়া হবে।তবে সমস্ত দাবি না মিটলে আমরা বাড়ি ফিরব না, প্রয়োজনে নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করব এখানেই আমাদের ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা করতে। ক্ষীণ কন্ঠস্বরে বলেই চলেছেন অনশনরত তানিয়া শেঠ। এসএসসির শূন্যপদে চাকরির দাবিতে অনশনের ২৪ দিন অতিক্রান্ত।

অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তানিয়া এবং অন্যান্যরাও তবুও লড়াই জারি রয়েছে।গতকালই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের সমস্ত অভিযোগ শুনবে পাঁচজনের তদন্ত কমিটি। এদিন অনশনকারীদের উদ্দেশ্যে জানানো হয়, ওই কমিটির কাছে সমস্ত অভিযোগ দু’দিনের মধ্যে লিখিতভাবে জমা দিতে হবে৷ কমিটি সেই সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখবে৷  ১৫ দিনের মধ্যে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। অন্যদিকে শিক্ষামন্ত্রী  অনশনকারীদের অনুরোধ করছিলেন অনশন তুলে নিয়ে ফিরে যেতে। তবে শনিবার অনশনকারীদের দাবি, তাঁদের সেনাবাহিনীর একটি চিঠির ফটোকপি দেখিয়ে বলছে উঠে যেতে। আমরা দেখলাম, প্রেস ক্লাবের সামনে এতজন এতদিন ধরে কেন বসে আছেন, সে ব্যাপারে সেনাবাহিনী পুলিশের কাছে জানতে চেয়েছে। আর ওই চিঠি নিয়ে এসে আমাদের হুমকি দিচ্ছে পুলিশ।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে কলকাতা পুলিশের ডিসি (সাউথ)বলেন, “আমরা ওঁদের ওখান থেকে উঠতে বলেছি। জায়গা ছেড়ে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এখন দেখি ওঁরা কী করেন। তারপর আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।”

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।