দেশ প্রথম পাতা

‘যদি জয় শ্রীরাম শুনতে ভালো না লাগে,তাহলে দয়া করে চাঁদে চলে যান’, অহিষ্ণুতা নিয়ে কটাক্ষ গোপালকৃষ্ণনের

নিজস্ব প্রতিনিধি : অপর্ণা সেন, কৌশিক সেনের পরে এবার আদুর গোপালকৃষ্ণন। অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোয় বিশ্বখ্যাত পরিচালককে ‘চাঁদে গিয়ে বসবাস করার’ বিধান দিলেন কেরালার বিজেপি মুখপাত্র বি গোপালকৃষ্ণন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বিদ্বজ্জনদের দেওয়া চিঠি পরিপ্রেক্ষিতে এমনটাই জানিয়েছিল বিজেপি মুখপাত্র বি গোপালকৃষ্ণন।

বৃহস্পতিবার ফেসবুক পোস্টে গোপালকৃষ্ণন লিখেছেন, ‘যদি জয় শ্রীরাম শুনতে ভালো না লাগে, তাহলে দয়া করে শ্রীহরিকোটায় নিজের নাম তালিকাভুক্ত করে চাঁদে চলে যান।’ শুধু তাই নয়, তাঁকে নিজের নাম পালটে ফেলার পরামর্শও দিয়েছেন বিজেপি নেতা।

সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে  গোপালকৃষ্ণন বলেন, এমন অফার দেওয়া খুশি হলাম। পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় ঘুরেছি। চাঁদ নিয়ে কৌতূহল তো রয়েছে। উনি যদি টিকিট এবং হোটেলের ব্যবস্থা করে দেন তো ভালই হয়। উল্লেখ্য, ফেসবুক পোস্টে বিজেপি নেতা লেখেন, যাঁরা জয় শ্রীরাম শুনতে অপছন্দ করেন, শ্রীহরিকোটায় নাম বুক করে চাঁদে চলে যান।

কেরল পরিচালক আদুর গোপালকৃষ্ণন জানান, রামের মাহত্ম্য শুনেই বড় হয়েছি। আর সেই রামের স্লোগানকে গণপিটুনিতে ব্যবহার করা উদ্বেগজনক। আগামী দিনে এই প্রবণতা ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করতে পারে।

ঠিকল কয়েক দিন আগে অসহিষ্ণুতা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখেছেন বুদ্ধিজীবীরা। চিঠিতে গণপিটুনিতে মৃত্যু, জয় শ্রী রাম ধ্বনি নিয়ে বাড়াবাড়ির অভিযোগ এনেছেন তাঁরা। বুধবার বিকেলে সাংবাদিক সম্মেলন করে এমন কথাই বললেন অপর্ণা সেন সহ আরও অনেক বিদ্বজনেরা। অসহিষ্ণুতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি লিখেছেন বিদ্বজনেরা। অসিহষ্ণুতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন ৪৯ জন বুদ্ধিজীবী। প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো এই চিঠিতে সই রয়েছে মণিরত্নম, অনুরাগ কাশ্যপ, আদুর গোপাল কৃষ্ণণ, বিনায়ক সেন সহ আরও অনেকের। অসহিষ্ণুতা ইস্যুতে এই চিঠিতে এরাজ্য থেকে সই করেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন, গৌতম ঘোষ, অনুপম রায় সহ আরও অনেকেই।

এদিকে বিশিষ্টদের প্রতিবাদ সম্পর্কে এদিন কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু দফতরের প্রতিমন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি বলেন, ‘২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের পরেও একই জিনিস আমরা দেখেছি অ্যাওয়ার্ড ওয়াপসি-এর নামে। এটা তারই দ্বিতীয় অধ্যায়।’

Spread the love