করোনা দেশ প্রথম পাতা

পোষ্যের থেকে মানুষের করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয় নেই, জানালেন এইমস-এর ডিরেক্টর।

বাড়িতে পায়ের কাছে খেলে বেড়ানো কুকুরটা বা পায়ে পায়ে ঘোরা তুলতুলে নরম তুলোর বলের মত বেড়াল। কার না পছন্দের। কিন্তু এদের থেকেও কী ছড়াতে পারে করোনা? এমন প্রশ্ন মনে জাগে বইকি। সে বিষয়ে দিশা দেখালেন চিকিৎসক। পোষ্যদের থেকে মানুষের করোনা-সংক্রমণ হয়, এমন কোনও তথ্য বা গবেষণালব্ধ প্রমাণ কোথাও মেলেনি এখনও পর্যন্ত।এ বিষয়ে নিশ্চিত করলেন এইমস-এর ডিরেক্টর ডক্টর রণদীপ গুলেরিয়া। তাই পোষ্যদের থেকে দূরে থাকার কোনও কারণই নেই।
এএনআই জানিয়েছে, ডক্টর গুলেরিয়া বলেন, “করোনাভাইরাস মানুষ এবং পশুপাখি– উভয়ের দেহেই থাকতে পারে। কিন্তু পশুদের দেহ থেকে কোভিড ১৯ অসুখ ছড়াচ্ছে, এমন কোনও তথ্যপ্রমাণ কোথাও নেই। মানুষের শরীর থেকে মানুষের শরীরেই এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটে।”
তিনি আরও বলেন, “মার্স অর্থাৎ মিডল ইস্ট রেসপিরেটরি সিনড্রোম এবং সার্স অর্থাৎ সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম অসুখের ভাইরাস যেমন পশুর শরীর থেকে মানুষের শরীরে প্রবেশ করেছিল, নোভেল করোনাভাইরাস তেমনটা নয়। এটা শুধু মানুষের থেকেই মানুষের দেহে ছড়ায়। পোষ্যদের দেহ থেকে মানুষের দেহে ছড়ানোর সম্ভাবনা প্রায় শূন্য। তাই করোনা মহামারীতেও বাড়িতে পোষ্য থাকা একেবারেই নিরাপদ।”
বস্তুত, করোনা-মহামারীতে পোষ্যদের নিয়ে অনেক ভীতি ও গুজব ছড়িয়েছে। একসময়ে শোনা গেছিল, চিনের করোনা বিধ্বস্ত উহান শহরে মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ঘটছে পশুদের থেকে, এই গুজব শুনে বহু মানুষ তাঁদের পোষ্যদের জানলা দিয়ে ছুড়ে ফেলে দিয়েছিলেন। অসংখ্য অবোলা প্রাণী মারা গেছিল সে সময়ে। অথচ এমন কোনও তথ্য বিজ্ঞানীরা পাননি, যে পশুর দেহ থেকে মানুষের শরীরে সংক্রামিত হয় নোভেল করোনাভাইরাস। সেই কথা মাথায় রেখেই ভারতের পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আগেই আগেভাগে সাধারণ মানুষকে সাবধান করে দিলেন এইমসের চিকিৎসক।

Spread the love