কলকাতা প্রথম পাতা

হাইওয়ে ছাড়া বাজবে না হুটার! মন্ত্রীদের গাড়িতে লালবাতির গন্ডি কেটে দিলেন মমতা

নিজস্ব প্রতিনিধি: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশই রয়েছে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি ছাড়া কেউই গাড়িতে লালবাতি জ্বালাতে পারবেন না। কিন্তু বাংলায় তা মানা হয় না। মন্ত্রী থেকে বিধায়ক, কর্পোরেশনের মেয়র পারিষদ থেকে পুরসভার চেয়ারম্যান, সকলের গাড়িতেই লালবাতি। অনেকের মতে, পারলে গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানও গাড়িতে লালবাতি লাগিয়ে নেন! কিন্তু এ বার থেকে এ সব আর করা যাবে না। সাফ নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর।লোকসভা ভোটের পর থেকে তৃণমূলের জনবিচ্ছিন্নতা প্রকটভাবে সামনে এসেছে। জনবিচ্ছিন্নতা কাটাতে মরিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জনসংযোগ গড়ে তুলতে নেওয়া হচ্ছে একের পর এক কর্মসূচি। দলকে ফের নতুন করে চাঙ্গা করতে ময়দানে নেমেছেন খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।দলের স্ট্র্যাটেজি ঠিক করতে পিছন থেকে নিজের মস্তিষ্ক খাটাচ্ছেন প্রশান্ত কিশোর।বিজেপি বলছে, প্রশান্তের গিমিকেই শেষর দিকে হাঁটছে তৃণমূল।কিন্তু শাসকদলের নেতা-নেত্রীরা বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানেন কি করে আন্দোলন করতে হয়।তিনি জানেন কিভাবে হারা ম্যাচ জিততে হয়।তাই তিনি নতুন করে দলকে সাজাতে দলের নেতা-কর্মীদের নানা কৌশল বলে দিচ্ছেন।তাই প্রথমেই দলের মন্ত্রীদের গাড়িতে লালবাতি জ্বালিয়ে ঘোরায় গণ্ডি কেটে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নজরুলমঞ্চের বৈঠকে মন্ত্রীদের উদ্দেশে মমতার সাফ নির্দেশ দিয়েছেন, হাইওয়ে ছাড়া লালবাতি জ্বালানো যাবে না।লালবাতি জ্বালানোর কারণেই মানুষের সঙ্গে মন্ত্রীদের দূরত্ব তৈরি হচ্ছে বলে বৈঠকে মন্তব্য করেছেন নেত্রী। স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন, নিজের এলাকাতে কোনও ভাবেই লালবাতি জ্বালিয়ে ঘোরা যাবে না।

১০ হাজার গ্রামে গিয়ে রাত কাটাতে হবে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতাদের, বেনজির মঞ্চে মমতার দলেও এবার ‘কর্পোরেট-টাচ’

 

Spread the love