কলকাতা প্রথম পাতা

বিচারপতির চেয়ারকে সম্মান জানান! গঙ্গারামপুর নিয়ে আদালতে ধাক্কা তৃণমূলের, খারিজ অনাস্থার নোটিশ

নিজস্ব প্রতিনিধি: বনগাঁ মামলায় সরকারি আইনজীবী-বিচারপতি সংঘাত তুঙ্গে। বনগাঁ মামলায় বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় এজলাস বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সরকারি আইনজীবীরা।  তার প্রেক্ষিতে এদিন হাইকোর্টে বনগাঁ মামলার শুনানি চলাকালীন সরকারি আইনজীবীদের কড়া মন্তব্য বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের।তাঁর পর্যবেক্ষণ, বিচারপতির প্রতি অনাস্থা মানে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির প্রতি অনাস্থা। কারণ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতিই ঠিক করে দেন কে কোন মামলা শুনবেন। সেক্ষেত্রে সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় এই ধরনের মামলাগুলি শোনার দায়িত্ব পেয়েছেন। সরকারি আইনজীবী যে পদক্ষেপ করেছেন, তাই হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতিকেও অসম্মান দেখানোর সামিল বলে মনে করেন তিনি।এর পাশাপাশি এদিন গঙ্গারামপুর পুরসভার অনাস্থা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে ফের ধাক্কা খেল তৃণমূল। আদালত জানিয়ে দিল,  ৫ অগস্টই হবে আস্থা ভোট। অন্য কোনও তারিখে তা করা যাবে না। গত ১৬ জুলাই গঙ্গারামপুরের ভাইস চেয়ারম্যান ৫ অগস্ট আস্থা ভোট করার নোটিস দিয়েছিলেন। ভাইস চেয়ারম্যান যোগ দিয়েছেন বিজেপি-তে। সেই নোটিসের পাল্টা হিসেবে চলতি মাসের ১৯ তারিখ তৃণমূলের তিন কাউন্সিলর অন্তর্বর্তী নোটিস দিয়ে বলেন, ৫ অগস্ট নয়। আস্থা ভোট হবে মঙ্গলবার অর্থাৎ ২৩ জুলাই। চ্যালেঞ্জ করে মামলা হয় হাইকোর্টে। সোমবার সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় বলেন, “কী করে একটা নোটিসের পর আরও একটা নোটিস জারি হয়ে গেল? নিয়মকানুন কি কিছুই জানেন না?” শুনানির শেষে ১৯ তারিখে জারি করা তৃণমূলের তিন কাউন্সিলরের নোটিস খারিজ করে দেন বিচারপতি।

 

Spread the love