কলকাতা প্রথম পাতা

নির্দেশিকা জারি করল নবান্ন, শর্ত দিয়ে বুঝিয়ে দিল আর্থিক অনগ্রসরদের কারা পাবেন ১০ শতাংশ সংরক্ষণ!

নিজস্ব প্রতিনিধি: লোকসভা নির্বাচনের আগে সংসদে ১২৪তম সংবিধান সংশোধন করে ‘উচ্চবর্ণ’-এর জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে মোদী সরকার। ভোটে বিজেপির বিপুল জয়ের পর একই পথে হাঁটে রাজ্যের তৃণমূল সরকার। বিধানসভায় মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে রাজ্যেও সাধারণ শ্রেণির জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণের সিদ্ধান্তে শিলমোহর দেয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভা। তবে রাজ্যের সংরক্ষণের শর্ত কী হবে তা নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। এ বার সে বিষয়ে সরকারি বিজ্ঞপ্তিও জারি করে দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। কেন্দ্রের নীতির সঙ্গে মোটামুটি ভাবে রাজ্যের এ ক্ষেত্রে বড় কোনও ফারাক নেই। নবান্নের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে-

১) প্রথমত, তফসিলি জাতি, উপজাতি এবং অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির আওতায় যাঁরা সংরক্ষণের সুবিধা পান তাঁরা এর আওতায় পড়বেন না।

২) পারিবারিক বার্ষিক মোট আয় ৮ লক্ষ টাকার কম হলে তবেই এই সংরক্ষণের সুবিধা পাওয়া যাবে। এখানে আয় বলতে, চাকরিতে বেতন, ব্যবসা, কৃষি আয় ইত্যাদি সবই ধরা হবে।

৩) পুরসভা এলাকায় একশ বর্গ গজের তুলনায় বড় বসত জমি থাকলে এই সংরক্ষণের সুবিধা পাওয়া যাবে না। নোটিফায়েড পুরসভার বাইরে বাড়ি হলে, বসত জমির আয়তন দু’শ বর্গ গজের কম হতে হবে।

৪) আবেদনকারী বা তাঁর পরিবার এক হাজার স্কোয়ার ফুট আয়তনের তুলনায় ছোট ফ্ল্যাটে থাকলে এই সংরক্ষণের সুবিধা পাবেন।

৫) পারিবারিক মালিকানায় ৫ একরের কম কৃষি জমির মালিকানা থাকলে তবেই এই সংরক্ষণের সুবিধা পাওয়া যাবে।

তবে এদিন নবান্নের নির্দেশিকার পর দেখা গেল কার্যত মোদী সরকারের সিদ্ধান্তের প্রায় পুরোটাই রপ্ত করে নিয়েছে রাজ্য সরকার।

 

 

Spread the love