দেশ প্রথম পাতা

রাত ২টোয় শপথ নিলেন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী! শরিকি চাপের কাছে মুখরক্ষা হল মোদী-শাহের

নিজস্ব সংবাদদাতা: রবিবার সন্ধ্যায় প্রয়াত হন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পর্রীকর। বছর ৬৩-র ওই বিজেপি নেতা বছরখানেক ধরে অগ্নাশ্যয়ের ক্যান্সারে ভুগছিলেন। তা সত্ত্বেও তিনি মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছিলেন।রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, ২০১৭ সালে গোয়ায় সরকার গঠনের চাবিকাঠি ছিল পর্রীকর হাতেই। তিনি মুখ্যমন্ত্রী হলে তবেই সমর্থন দেওয়া হবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন শরিকরা।সেই পরিস্থিতিতে গোয়ার সরকার গড়তে পর্রীকরকে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। ফলে সরকার বাঁচাতে ভগ্নস্বাস্থ্য নিয়ে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।কিন্তু তাঁর প্রয়াণে গোয়ায় সরকার বাঁচাতে সঙ্কট বাড়ে বিজেপি নেতৃত্বের।মনোহর পর্রীকরের উত্তরসূরী পেল গোয়া। নতুন মুখ্যমন্ত্রী হলেন বিজেপির বিধায়ক প্রমোদ সাওয়ান্ত। সোমবার রাত ২টোয় শপথ নিলেন তিনি। ফলে লোকসভা নির্বাচনের আগে শরিকি মতানৈক্য মিটিয়ে গোয়ায় মুখরক্ষা হল মোদী-অমিতের দলের।প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পর্রীকরের অত্যন্ত কাছের মানুষ বলে পরিচিত সাওয়ান্ত। অনেকেই তাঁকে পর্রীকরের ‘কান’ বলতেন। তবে গোয়ার রাজনীতিতে এই নেতা বহুমুখী প্রতিভাসম্পন্ন, বলছেন মনে করছেন অনেকে। গোয়াতেই ডাক্তারি করতেন প্রমোদ।সোমবার দিনভর শরিকদের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা চলে বিজেপির। প্রত্যেক বিধায়কের সঙ্গে কথা বলেন নিতিন গড়কড়ি। মুখ্যমন্ত্রীর পদের দাবিদার হয়ে ওঠেন একাধিক শরিক নেতা। প্রত্যেকেই চাপ বাড়াতে থাকে বিজেপির উপর।ফলে মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা ও শপথগ্রহণের সময় ক্রমশ পিছোতে থাকে। ইতিমধ্যে গোয়ায় গিয়ে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শেষশ্রদ্ধা জানান প্রয়াত মনোহর পর্রীকরকে। বিকেলেই তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।

তার পর জানা যায় যে গোয়ায় রাজনৈতিক সংকট মিটেছে। বিজেপি ও শরিকদের মতৈক্যে গোয়ার স্পিকার প্রমোদ সাওয়ান্তকে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে। রাত ১টা ৫০ মিনিটে শপথ নেন প্রমোদ।একই সঙ্গে শপথ নেন অন্য মন্ত্রীরা। পর্রীকরের আমলে যাঁরা মন্ত্রী ছিলেন, তাঁরাও শপথ নিয়েছেন। বিজেপির একটি সূত্রের খবর, দুই শরিক মহারাষ্ট্র গোমন্তক পার্টির নেতা সুদিন দাভালিকর ও গোয়া ফরওয়ার্ড পার্টির বিজয় সারদেশাইকে উপ-মুখ্যমন্ত্রী করা হতে পারে।

 

 

 

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।