আজকের সারাদিন প্রথম পাতা বিনোদন

মানুষকে বিশ্বাস করব না? কেউ যদি বাড়িতে আসে তাড়িয়ে দেব?বিজেপিতে যাওয়া নিয়ে মন্তব্য মাধবী মুখোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিনিধি : ‘আমার সঙ্গে প্রতারণা হয়েছে, ওরা কি করে আমার সাথে এটা করতে পারে”। সম্প্রতি এমনই অভিযোগ করেছেন কিংবদন্তি অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়। আজ একটি বেসরকারি নিউস চ্যানেলে দেওযা সাক্ষাৎকারে বিজেপিতে নিজের যাওয়া নিয়ে মুখ খলেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়।

বেশকিছু দিন ধরে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সম্প্রচারিত হচ্ছে তাঁর বিজেপিতে যাওয়া নিয়ে খবর। অবশেষ বধুবার তিনি ওই চ্যানেলকে বললেন, ”তাঁর সাথে প্রতারণা হয়েছে। কয়েকদিন আগে বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদের নাম করে মিলন ভৌমিক সহ বেশ কয়েকজন তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসেন। তারা তাঁকে জানান, টলিপাড়ার যেসমস্ত দুঃস্থ শিল্পী ও টেকনিশিয়ানসরা আছেন তাঁদের সাহায্যের জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছেন তাঁরা। সেই সমস্ত শিল্পীদের যাতে প্রতি মাসে সাড়ে ৩ হাজার টাকা করে দেওয়া যায় তার জন্যে এই ব্যবস্থা করা হবে বলে আমাকে জানানো হয়। এক্ষেত্রে আমাকে তাঁদের পাশে আছি কিনা সেটা জিজ্ঞেস করা হয়। এরপরই আমি এই উদ্যোগকেই স্বাগত জানিয়ে তাঁদের পাশে আছি বলে এই বিষয়ে নিজের সহমত দিয়ে দিই।

এরপরই তারা আমাকে একটি কাগজে সই করতে বলে। সেই সময় আমার চোখে চশমা ছিল না। আমি ওদের বিশ্বাস করে সই করে দিই। যার ফলে আমি নিজের ক্ষতি করে বসি। ওই দিন রাতে আমাকে বেশ কয়েক জন ফোনে প্রশ্ন করেন, তারা বলে আপনি কি সত্যি বিজেপিতেচলে গেছেন? একথা শুনে আমি অবাক হই। উত্তরে বলি, এইরকম তো কিছুই হয়নি। তারপরই পুরো বিষয়টা আমাকে জানানো হয়। তখন আমি কী করব তা ঠিক বুঝতে পারছিলাম না। আমি তো ভাবতেই পারছি না, আমার সঙ্গে এভাবে কেউ প্রতারণা করতে পারে! তাহলে এবার থেকে মানুষকে আর বিশ্বাস করা যাবে না? এবার থেকে কেউ যদি বাড়িতে আসে তাকে তাড়িয়ে দেব নাকি? বিজেপিই হোক, আর যেই হোক, কোনও রাজনৈতিক দলের কথাই আমায় বলা হয়নি। ”

অবশেষে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে ক্ষোব উগড়ে দিয়ে মাধবী মুখোপাধ্যায়ের বলেন, ”মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা কাজ করেছেন, তাতে আমাদের সকলের তাঁর সঙ্গে থাকা উচিত। যাঁরাই থাকুন না কেন, তাঁদের আদর্শ থাকা উচিত। তবে ওই মুকুল রায়ের মতো আদর্শ নয়, যে আজ এখানে কাল সেখান। সুবিধার জন্য আদর্শ হয় না, আদর্শ আলাদা বিষয়।”

মাধবী ২০০১ সালে তৃণমূলের টিকিটে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর বিরুদ্ধে যাদবপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে লড়েছিলেন। তবে হেরে যাওয়ার পর তাঁকে আর সে ভাবে সক্রিয় রাজনীতিতে দেখা যায়নি।

Spread the love