অফবীট দেশ বিনোদন

অবাধ্য কণিকা, সরব হাসাপাতাল ডিরেক্টর।

হাসপাতালে সব রকম সুবিধা দেওয়া সত্বেও কনিকা কাপুর চিকিৎসক এবং চিকিৎসা কর্মীদের সঙ্গে সহযোগিতা করছেন না বলে অভিযোগ আনলেন লক্ষৌ হাসপাতালের ডিরেক্টর আর কে ধীমান। তিনি জানিয়েছেন, কনিকা যে রুমে চিকিৎসাধীন রয়েছেন, সেখানে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সামগ্রী সহ একটি টেলিভিশন রয়েছে। এসত্বেও চিকিৎসা কর্মীদের অসহযোগীতা করছেন কণিকা। যদিও এ বিষয়ে গায়িকার পরিবারের পক্ষ থেকে কোনরকম বিবৃতি পাওয়া যায়নি। উল্লেখ্য, কয়েকদিন ধরেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা চলছে বলিউডের প্লে ব্যাক সিঙ্গার কণিকা কাপুর। জানা গিয়েছে, কোভিড ১৯ আক্রান্ত হয়েছেন বিটাউনের এই সঙ্গীতশিল্পী। জানা গিয়েছে, কোয়ারেন্টাইন’-এ রয়েছেন তিনি। তাঁর পরিবারের সদস্যরাও রয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে। লখনউয়ের কিংস জর্জ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি রয়েছেন কণিকা কাপুর। কয়েকদিন আগেই লন্ডন থেকে লখনউ ফিরেছেন কণিকা। অভিযোগ, একথা কাউকে জানাননি তিনি। এমনকি নিজের বাড়িতে বন্ধুবান্ধবের জন্য একটি বিলাসবহুল পার্টিও দিয়েছিলেন তিনি। ইনস্টাগ্রামে নিজের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কথাও স্বীকার করে নিয়েছেন কণিকা। জানিয়েছেন, চারদিন আগে জ্বর হয়েছিল তাঁর। লক্ষণ দেখে সন্দেহ হওয়ায় হাসপাতালে পরীক্ষা করাতে যান তিনি। রিপোর্টে দেখা যায় কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন কণিকা। সঙ্গীত শিল্পী আরও জানিয়েছেন, ১০ দিন আগে যখন দেশে ফিরেছিলেন তখন বিমাবন্দরে স্ক্যানিং হওয়ার পরেও কিছু ধরা পড়েনি। দিন চারেক আগে বেশ কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। এরপরেই পরীক্ষা-নিরিক্ষা করান কণিকা। রিপোর্ট হাতে পেলে জানতে পারেন যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হয়েছে তাঁর। তবে কণিকা জানিয়েছেন, জ্বর এবং সর্দি-কাশির মতো সাধারণ ফ্লুয়ের উপসর্গ ছাড়া আর বড় কোনও সমস্যা হয়নি তাঁর। প্রসঙ্গত, গত ৯ মার্চ লন্ডন থেকে দেশে ফিরেছিলেন কণিকা।

Spread the love