প্রথম পাতা বিনোদন

দীপিকার ‘ছপাক’ লুক মনে করাচ্ছে তাঁর অতীতের কথা, অ্যাসিড হামলায় ভুক্তভোগী কঙ্গনার দিদি রঙ্গোলি

নিজস্ব প্রতিনিধি : মুখের একদিক অ্যাসিডে পুড়ে যাওয়ায় চামড়া কোঁচকানো দাগ। তাও সারা মুখে লেগে রয়েছে পরিচিত তাঁর চওড়া হাসি। আর চোখে লেগে রয়েছে ঘুরে দাঁড়ানোর ছাপ। তবে এই হাসির পিছনেই রয়েছে অনেক যন্ত্রণার গল্প। রয়েছে অনেক লড়াইয়ের কাহিনী।  এবার বাস্তবের নির্মম সত্যিটাই পর্দায় তুলে ধরবেন দীপিকা পাড়ুকোন। অভিনয় করবেন অ্যাসিড আক্রান্ত লক্ষ্মী আগরওয়ালের চরিত্রে। ছবিতে তাঁর চরিত্রের নাম ‘মালতি’। নায়িকা নিজে জানিয়েছেন, এই চরিত্র আজীবন তাঁর হৃদয়ে থাকবে।

দীপিকার এই ‘ছপাক’ লুকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ বলিপ্রেমীরা। তবে দীপিকার এই চেহারার সঙ্গে নিজের জীবনের সবচেয়ে বেশি মিল খুঁজে পেয়েছেন রঙ্গোলি চান্দেল। হিমাচল কুইন কঙ্গনা রানাওয়াতের দিদি হওয়ার সুবাদে বি-টাউনের অনেকেই রঙ্গোলির সঙ্গে পরিচিত। তবে তিনি যে একজন অ্যাসিড অ্যাটাক সারভাইভার তা বোধহয় জানা ছিল না অনেকেরই।

অনেকেই হয়ত জানেন না, রঙ্গোলি নিজেও একজন অ্যাসিড আক্রান্ত। যতদূর জানা যায়, রঙ্গোলি হিমাচল প্রদেশের প্রথম অ্যাসিড আক্রান্ত মহিলা। ২০০৬ সালে দেরাদুনে রঙ্গোলির উপর অ্যাসিড হামলা হয়। চণ্ডীগড়ের দুই যুবক কঙ্গনার দিদি রঙ্গোলির উপর অ্যাসিড হামলা চালান বলে জানা যায়। পুরোপুরি অন্ধ না হয়ে গেলেও, অনেক অংশেই হারিয়ে ফেলেছিলেন দৃষ্টিশক্তি। একটা কান নষ্ট হয়ে যায়। এরপর দীর্ঘদিন ধরে ৫৭টি অস্ত্রোপচারের পর খানিকটা স্বাভাবিক হন রঙ্গোলি চান্দেল।  তবে রঙ্গোলির কথায়, অ্যাসিড আক্রান্ত হওয়ার পর সেই ভয়ানক যন্ত্রণা কখনওই ভোলার নয়। শরীরের থেকেও মনেক কষ্ট ছিল আরও ভয়ানক।

তারপর ২০১১ সালে ব্যবসায়ী অজয় চান্দেলের সঙ্গে বিয়ে হয় রঙ্গোলির। ২০১৭ সালে প্রথম সন্তান পৃথ্বীরাজের জন্ম দেন তিনি।

View this post on Instagram

Good morning ♥️

A post shared by Laxmi Agarwal (@thelaxmiagarwal) on

তবে অবশ্য শুধুই রঙ্গোলি নয়, ওই দিন সেই অ্যাসিড হামলায় জখম হন রঙ্গোলির আরও এক বন্ধু বিজয়া। যদিও বিজয়ার ক্ষতর পরিবার রঙ্গোলির থেকে অনেকটাই কম ছিল বলে জানা যায়। রঙ্গোলির উপর যে যুবক অ্যাসিড হামলা চালিয়েছিল সে অবিনাশ বলে সেই যুবককে গ্রেফতারও করা যায়। সেই যুবক রঙ্গোলিকে পাঁচ বছর ধরে চিনত বলেও জানা যায়। রঙ্গোলির উপর এই অ্যাসিড হামলা হয় ২০০৬ সালে। তাই অ্যাসিড আক্রান্তের কষ্ট কতখানি তা হয়ত রঙ্গোলির থেকে ভালো আর কেউ অনুভব করতে পারবেন না। তাই দীপিকার ‘ছপাক’-এর লুক প্রকাশ্যে আসার পর তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন রঙ্গোলি চান্দেল।

 

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।