আম্ফান প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

আসছে ঘূর্ণিঝড় আমফান, হাওড়া স্টেশনে চেন দিয়ে বাঁধা হলো ট্রেন।

প্রবল গতিবেগ নিয়ে রাজ্যে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। প্রতিটি জেলায় এবিষয়ে সর্তকতা জারি করেছে দুর্যোগ বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী হাওড়ার উপর দিয়ে ১৯০ কিলোমিটার বেগে বইতে পারে আমফান। ইতিমধ্যেই জেলার বিভিন্ন জায়গায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি শুরু হয়েছে।প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে এগিয়ে যেতে পারে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেন। তেমন হলে দুর্ঘটনার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। তাই রেলের দক্ষিণ-পূর্ব শাখায় বিভিন্ন স্টেশন ও ইয়ার্ডে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনগুলির চাকা চেন তালা দিয়ে বেঁধে ফেলা হচ্ছে। আগাম এই সতর্কতার কথা দক্ষিণ-পূর্ব রেল সূত্রে জানা গেছে।এমনই দৃশ্য চোখে পড়েছে হাওড়া স্টেশনে। ঘুর্ণিঝড় আমফানের মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই চব্বিশ ঘণ্টার হেল্পলাইন চালু করে দিয়েছে হাওড়া পুর নিগম। হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-২৬৩৭১৭৩৫।

পুর এলাকার সমস্ত বরো অফিস ও বালির সাব-অফিসগুলিতে ২৪ ঘণ্টা এই কন্ট্রোল রুম খোলা থাকবে। সমস্ত বরো অফিস এবং বালির সাব অফিসগুলিতে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের পরিচালনার দল তৈরি করা হয়েছে। সমস্ত বিপজ্জনক গাছ, বিপজ্জনক বাড়ি ও হোর্ডিংয়ের দিকে নজর রাখবেন বিপর্যয় মোকাবিলা দলের সদস্যরা। ফেসবুক ও টুইটারের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই পর্যাপ্ত গ্যাসকাটারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শাটার ও গ্রিলের মতো ধাতব জিনিস কাটার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়। পাশাপাশি হাওড়া পুরো এলাকায় বর্ষার সময়ে জল জমে। সেজন্য পাম্পের ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন। এছাড়াও পুরো ও গ্রামীণ এলাকায় শুকনো খাবার, পানীয় জল, ত্রিপল সহ সবকিছুই মজুদ রেখেছে প্রশাসন। সাধারণ নাগরিকদের সতর্ক করতে মাইকে প্রচার শুরু হয়েছে। বুধবার থেকে ভারী বৃষ্টিপাত ও ঝোড়ো হাওয়ার দাপট থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

Spread the love